আমার কোনো ফেসবুক আইডি নেই : কাজী হায়াৎ

0
199

য়েক দিন ধরেই পরিচালক কাজী হায়াৎ নামের একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠানো হচ্ছে। অ্যাকাউন্টে গিয়ে দেখা গেল, এরই মধ্যে অ্যাকাউন্টটির ফলোয়ারের সংখ্যা পাঁচ হাজারের কাছাকাছি। তবে যার নামে এই অ্যাকাউন্ট, তিনিই জানেন না এর কোনো কিছু। বরং কাজী হায়াৎ ফেসবুকের বিষয়টি নিয়ে বিব্রত।

কাজী হায়াৎ বলেন, ‘আমি তো আর ফেসবুক আইডি ব্যবহার করি না। কিন্তু পরিচিতজনদের কাছে শুনেছি, আমার নামে নাকি কয়েকটি আইডি খোলা হয়েছে এবং এরই মধ্যে একটি আইডি থেকে সবাইকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠানো হচ্ছে। বিষয়টি আমার জন্য খুবই বিব্রতকর।’

কাজী হায়াৎ আরো বলেন, ‘আমি জানি, ফেসবুক দিয়ে এখন অনেকেই অনেক কিছু করে থাকেন। আমি বিষয়টি নিয়ে একটু ভয়ও পাচ্ছি। কারণ, যারা এই আইডি চালাচ্ছে, তারা অবশ্যই কোনো না কোনো উদ্দেশ্য নিয়ে কাজটি করছে। আমার নামের আইডি থেকে যেকোনো সময় রাষ্ট্রবিরোধী প্রচারণা চালাতে পারে। আমি একজন চলচ্চিত্র পরিচালক, সে হিসেবে আমার নাম দিয়ে বিভিন্ন মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করতে পারে। এতে করে দেশ ও দেশের মানুষের ক্ষতি হতে পারে।’

ভুয়া অ্যাকাউন্টগুলো নিয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে কি না জানতে চাইলে কাজী হায়াৎ বলেন, ‘আমার পরিচিত পুলিশ অফিসারদের সঙ্গে আমি যোগাযোগ করেছি। কারা কাজটি করছে, সেটা বের করার চেষ্টা করছি। বিষয়টি নিয়ে আমি আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও চিন্তা করছি। কারণ যারাই এটি করেছে, তারা অন্যায় করছে। তারা যদি আমার ভক্তও হয়ে থাকে, তবুও তারা অন্যায় করেছে। আর অন্যায়ের শাস্তি হতে হবে। তারপরও আমি সবাইকে সতর্ক হতে বলব। কারণ এটা শুধু আমার বেলায় নয়, মিডিয়াতে কাজ করেন এমন অনেকের নামেই ভুয়া আইডি আছে, যা শিল্পীরা জানেন না। এতে করে হয়তো অনেকেই প্রতারিত হচ্ছে। যে কারণে বিষয়টি নিয়ে সবার সতর্ক হওয়া উচিত।’

কাজী হায়াৎ একজন পরিচালক, কাহিনীকার, চিত্রনাট্যকার, প্রযোজক ও অভিনেতা। পরিচালক মমতাজ আলীর সহকারী হিসেবে চলচ্চিত্রজগতে কর্মজীবন শুরু করেন। ১৯৭৯ সালে ‘দি ফাদার’ নামে চলচ্চিত্রের মাধ্যমে পরিচালনা জীবন শুরু করেন।

কাজী হায়াৎ পরিচালিত ছবিগুলোতে সমাজের বিভিন্ন অনিয়ম, অরাজকতা ইত্যাদি উঠে আসে। চলচ্চিত্র নির্মাণে তিনি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here