আশুলিয়ায় পোশাক কারখানায় ডাকাতি; নিরাপত্তাকর্মীসহ আহত-১০

0
148

সাভারের আশুলিয়ায় একটি ফ্যাশন ওয়্যার কারখানায় দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতের হামলায় আহত হয়েছেন ওই কারখানার ৩ নিরাপত্তাকর্মীসহ ১০ জন শ্রমিক। ডাকাতরা এসময় ওই কারখানা থেকে সুতা, ন্যাকরা, ল্যাপটপ ও মূল্যবান যন্ত্রাংশসহ প্রায় ২০ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায় বলে শ্রমিকরা জানায়। তবে কারখানার মালিক মো. নিদানুজ্জামান ডাকাতির ঘটনার কোন তথ্য না দিয়ে কোন নিউজ করার দরকার নেই বলে উপস্থিত সংবাদকর্মীদের জানান।

রবিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে আশুলিয়ার কবিরপুর দেওয়ানপাড়া এলাকার লাব্বাইক ফ্যাশন ওয়্যার লিমিটেড নামের ওই কারখানায় ডাকাতির এ ঘটনা ঘটে।

ডাকাতদের হামলায় আহতরা হলো- মানিক সরকার, জসিম, রনক, হৃদয়, সুজন রায়, আলী আকবর, মালেক, কবির, রনি আহাম্মেদ, রুহুল আমিন, হাশেম আলী, নিজাম উদ্দিন, ও আজিবর রহমান। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

কারখানার নিরাপত্তাকর্মী হাশেম আলী, নিজাম আলীসহ রাতে কর্মরত শ্রমিকরা জানায়, রবিবার রাতের সিফটে তারা ১০ জন শ্রমিক কাজ করছিল। রাত দেড়টার দিকে ৩০-৩৫ জনের মুখোশ পরিহিত একদল ডাকাত কারখানার সীমানা প্রাচীর টপকে ভেতরে প্রবেশ করে এবং প্রথমে নিরাপত্তা হাশেম আলী, নিজাম ও আজিবরের হাত-পা বেঁধে ফেলে রাখে। এসময় কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই ডাকাত দলের সদস্যরা তাদেরকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মারধর শুরু করে। পরে ডাকাতদলের সদস্যরা কারখানার ভেতরে কর্মরত শ্রমিকদেরও অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ফেলে এবং তাদের সাথে থাকা নগদ টাকা, মোবাইল ফোন ও একজনের হাতের আঙ্গুলে থাকা স্বর্ণের আংটি লুট করে। পরে তাদেরকেও মারধর করে হাত-পা ও মুখ বেঁধে ফেলে রাখে।

একপর্যায়ে ডাকাতরা কারখানার ভেতরে ভাংচুর চালায়। পরে কারখানার ভেতরে একটি পিকআপ ভ্যান ঢুকিয়ে সুতা, ল্যাপটপ ও মেশিনারিজ যন্ত্রাংশসহ প্রায় ২০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ নিদানুজ্জামান বলেন, ডাকতরা কারখানার শ্রমিকদের মারধর করে বেঁধে রেখে প্রায় ২০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে। তবে বিষয়টি নিয়ে আপতত লেখালেখির দরকার নাই।

আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল আউয়াল বলেন, ডাকাতির খবর শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here