ইমরানের স্ত্রীর সাবেক স্বামীর গাড়ি পরীক্ষা, পুলিশ বদলি

0
196

পাকিস্তানের ফার্স্ট লেডি বুশরা মানেকার সাবেক স্বামী খাওয়ার মানেকার গাড়ি পুলিশি চেক পয়েন্টে থামানোর কারণে পুলিশের এক কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে।

পাঁচ দিন আগের ওই ঘটনার কারণে একজন জেলা পুলিশ কর্মকর্তাকে প্রথমে ক্ষমা চাইতে বলা হয়। তিনি তা নাকচ করে দেন। এরপরই ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে। এ ঘটনার খবর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছে। এদিকে এ ঘটনার প্রতিবেদন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

জিয়ো নিউজ ও ট্রিবিউন ডটকমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাঞ্জাবের পাকপাত্তান জেলা পুলিশ কর্মকর্তা (ডিপিও) রিজওয়ান গোন্ডাল এবং কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা গত বৃহস্পতিবার (২৩ আগস্ট) পুলিশের চেক পয়েন্টে খাওয়ার মানেকার গাড়ি থামানোর চেষ্টা করেন। খাওয়ার মানেকা গাড়ি না থামিয়ে চলে যেতে থাকেন। পরবর্তী সময় পুলিশও ধাওয়া করে বুশরা মানেকার সাবেক স্বামী খাওয়ার মানেকার গাড়ি থামান। গাড়ি থামানোর পর খাওয়ার মানেকা ওই পুলিশ কর্মকর্তাসহ কয়েকজনকে গালিগালাজ করেন।

তবে কয়েকটি গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, খাওয়ার মানেকা রিজওয়ান গোন্ডালকে মারধর করেছেন।

জিয়ো নিউজ ও ট্রিবিউন ডমকমের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, রিজওয়ানকে খাওয়ার মানেকার বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। খাওয়ারের কাছে তাঁকে দুঃখ প্রকাশ করে ক্ষমা চাইতে বলা হয়। পুলিশ কর্মকর্তাদের সামনেই রিজওয়ান বলেন, তিনি দুঃখ প্রকাশ করবেন না, ক্ষমাও চাইবেন না।

এ নিয়ে গত রোববার পাঞ্জাবের প্রাদেশিক সরকারের এক কর্মকর্তা রিজওয়ানকে খাওয়ার মানেকার কাছে ক্ষমা চাইতে বলেন। কিন্তু রিজওয়ান এ আদেশ পালনে অস্বীকৃতি জানান। রিজওয়ান বলেন, খাওয়ারের গাড়ি থামিয়ে তিনি কোনো ভুল করেননি। তিনি নিয়মিত তল্লাশির অংশ হিসেবে এ কাজ করেছেন। ক্ষমা না চাওয়ায় ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে।

এরপরই খাওয়ারের গাড়ি থামানো রিজওয়ানকে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ওসমান বুজদারের কার্যালয়ে নেওয়া হয়। সেখানে মুখ্যমন্ত্রীকে রিজওয়ান গোন্ডাল জানান, গাড়ি থামিয়ে তিনি কোনো ভুল করেননি। তিনি ক্ষমা চাইবেন না। তিনি তাঁর দায়িত্ব পালন করেছেন।

পাঞ্জাব পুলিশের মুখপাত্র সৈয়দ নায়েব হায়দার বলেছেন, রিজওয়ানকে কোনো চাপ দেওয়া হয়নি। তিনি বলেন, আইজিপি কালেম ইমাম ওই পুলিশকে অন্যত্র বদলি করেছেন কারণ রিজওয়ান কর্তৃপক্ষের কাছে ঘটনাটির ভুল ব্যাখ্যা করেছেন। তিনি (রিজওয়ান) নাগরিকদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছেন।

সৈয়দ নায়েব হায়দার বলেন, আইজিপি এ ঘটনা তদন্তের জন্য কমিটি গঠন করেছেন।

পুলিশ কর্মকর্তা রিজওয়ানের এই ঘটনার খবর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছে। রিজওয়ান অনেকের কাছে রীতিমতো নায়কের আসনে বসে গেছেন।

প্রতিবেদন চান ইমরান
খাওয়ার মানেকার গাড়ি থামানো এবং রিজওয়ানের বদলি-সংক্রান্ত ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বুশরা মানেকা ইমরান খানের তৃতীয় স্ত্রী।

প্রথম আলো

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here