ইরানে চবাহার বন্দর নির্মাণে ভারতের বিরুদ্ধে মার্কিন অবরোধের চিন্তা

0
211

পাকিস্তানকে পাশ কাটিয়ে আফগানিস্তানের সঙ্গে যোগাযোগভিত্তিক ইরানের চবাহার বন্দর নির্মাণে ভারতে যে ২’শ কোটি ডলার বিনিয়োগ করছে তা মোটেও ভাল চোখে দেখছে না যুক্তরাষ্ট্র। এমনিতে দেড় দশকের বেশি সময় ধরে আফগানিস্তানে ট্রিলিয়ন ডলার খরচ করে যুক্তরাষ্ট্র সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে যাচ্ছে।

আফগানিস্তানের খনিজ সম্পদ ভবিষ্যতে চবাহার বন্দর দিয়ে রফতানির সুযোগ পেলে দেশটির অর্থনৈতিক চেহারা পাল্টে যাবে। এছাড়া চবাহার বন্দর ছাড়াও ভারত ও ইরান সুয়েজখালের বিকল্প আন্তর্জাতিক নৌরুট তৈরির পরিকল্পনা নিয়েছে। শেষমেষ ইরানের বিরুদ্ধে মার্কিন অবরোধ সত্ত্বেও দেশটি থেকে তেল আমদানি অব্যাহত রেখেছে ভারত। এমনকি ডলারের বিপরীতে ইরান, তুরস্ক ও রাশিয়া যে নিজস্ব মুদ্রায় বাণিজ্যিক লেনদেনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা অনুসরণ করতে যাচ্ছে ভারত। এসব বিবেচনা করেই ভারতের ওপর অবরোধের সক্রিয় চিন্তা করছে যুক্তরাষ্ট্র। স্পুটনিক

ইরানের দক্ষিণাঞ্চলে চবাহার হচ্ছে গভীর সমুদ্র বন্দর। চবাহার-হাজিগাক করিডোর ও রেলপথ (৪৩০ মাইল) ভারত মহাসাগর এবং আফগানিস্তানকে যুক্ত করবে। এরফলে আফগানিস্তান থেকে ১.৮ বিলিয়ন টন খনিজ রফতানির সুযোগ খুলে যাবে। তবে ভারতের ওপর মার্কিন অবরোধ আরোপ হলে চবাহার প্রকল্প ঝুলে যেতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রিন্সিপ্যাল ডেপুটি এ্যাসিসটেন্ট সেক্রেটারি অব স্টেট ফর সাউথ এন্ড সেন্ট্রাল এশিয়ার দায়িত্বে যিনি রয়েছেন সেই এ্যালিচ ওয়েলস বলছেন চবাহার প্রকল্প পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে। চবাহার বন্দরে ভারতের বিনিয়োগে অবরোধ দেওয়া হলে তা যুক্তরাষ্ট্রের অংশীদার দেশগুলোর ওপর নয় বরং ইরানের আচরণের কারণেই তা আরোপ করা হবে। তাছাড়া চবাহার বন্দর নির্মাণের কি ধরনের প্রভাব আফগানিস্তানের ওপর পড়বে বা দেশটির স্থিতিশীলতা বিনষ্ট হবে কি না বা এধরনের নতুন যোগাযোগ ওই অঞ্চলে কাদের স্বার্থ রক্ষা করবে এসব বিষয় বিবেচনা করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here