ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে সাহসী সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় সাকিব

0
136

একাদশ নির্বাচনের সময় সাহসী মনোভাব নিয়েই দল সাজাতে হবে। অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের বিশ্বাস দল নির্বাচনের ক্ষেত্রে বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। একটা নির্দিষ্ট ম্যাচে যে দলের হয়ে বাড়তি অবদান রাখতে পারবে তাকেই সুযোগ দেয়া হবে একাদশে।

ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে এমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন দলপতি সাকিব আল হাসান। উইকেট থেকে বাড়তি সুবিধা পেতে পারেন স্পিনাররা তাই একাদশে বাড়তি স্পিনারও খেলাতে পারে টিম ম্যানেজম্যান্ট। সাকিব বলেন, ‘যারাই দল নির্বাচন করবে, আমি হই, কোচ হোক বা নির্বাচকরা, একটু সাহসী মনোভাব নিয়ে একাদশ নির্বাচন করতে হবে। একটু ধারণা করতেই হবে কে নির্দিষ্ট টেস্ট ম্যাচে আমাদের হয়ে বেশি অবদান রাখতে পারবে।’

যতদূর জানা গিয়েছে টেস্ট অভিষেকের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আছেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান সাদমান ইসলাম অনিক। অনিকের অভিষেক হলে সাইডবেঞ্চে বসতে হতে পারে ওপেনার ইমরুল কায়েসকে। জিম্বাবুয়ে সিরিজে ভালো না করায় তাঁকে একাদশের বাইরে রাখতে পারে টিম ম্যানেজম্যান্ট।

আর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে না থাকলেও উইন্ডিজ সিরিজ দিয়ে সাদা পোশাকে ফিরতে পারেন সৌম্য সরকার। সব মিলিয়ে খুব সম্ভবত নতুন উদ্বোধনী জুটি পেতে যাচ্ছে বাংলাদেশ দল। তিন নম্বরে যথারীতি থাকছেন মমিনুল হক।

চার নম্বরের ভরসা মুশফিকুর রহিম, অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ইনজুরি থেকে সেরে উঠে একাদশে থাকলে তিনি খেলবেন পাঁচ নম্বরে। ছয় এবং সাত নম্বরে থাকবেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ এবং মোহাম্মাদ মিথুন। যেহেতু স্পিন সহায়ক উইকেটের ধারণা করা হচ্ছে তাই একাদশে তিন স্পিনার থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

সেটা হলে মেহেদি হাসান মিরাজ এবং তাইজুল ইসলামের সঙ্গে দেখা যেতে পারে তরুন নাঈম হাসানকে। সাদমান ইসলামের মত তিনিও টেস্ট অভিষেকের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আছেন। একমাত্র পেসার হিসেবে একাদশে থাকা নিশ্চিত মুস্তাফিজুর রহমানের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here