করোনা থেকে নিজেকে বাঁচাবেন যেভাবে

0
96

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে তিন ব্যক্তির দেহে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) জীবাণু সংক্রমণের খবরে দেশজুড়ে নানান প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। বিশেষ করে রাজধানী ঢাকায় এরই মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে আশ্বাস দেয়া হয়েছে, আতঙ্কের কিছু নেই। করোনা মোকাবিলায় পুরোপুরি প্রস্তুত তারা।   

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই রোগ থেকে রক্ষার একমাত্র উপায় অন্যদের মধ্যে ভাইরাসের সংক্রমণ হতে না দেয়া। জনসমাগম প্রতিহারের পাশাপাশি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ঘরে বেশির ভাগ সময় অবস্থান করে নিজেকে সুরক্ষা করা সম্ভব।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণে বিশ্বের শতাধিক দেশের তালিকায় বাংলাদেশের নাম যুক্ত হয়েছে বলে রোববার নিশ্চিত করে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)।

কতটা ভয়ংকর এই ভাইরাস?
চিকিৎসকরা বলছেন, শ্বাসতন্ত্রের অন্যান্য অসুস্থতার মতো করোনা ভাইরাসের ক্ষেত্রেও সর্দি, কাশি, গলা ব্যথা এবং জ্বরসহ হালকা লক্ষণ দেখা দিতে পারে । কিছু মানুষের জন্য এই ভাইরাসের সংক্রমণ মারাত্মক হতে পারে। এতে নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্ট এবং অর্গান বিপর্যয়ের মতো ঘটনাও ঘটতে পারে। তবে খুব কম ক্ষেত্রেই এই রোগ মারাত্মক হয়। তবে এই ভাইরাস সংক্রমণের ফলে বয়স্ক ও আগে থেকে অসুস্থ ব্যক্তিদের মারাত্মকভাবে অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকি বেশি।

পঞ্চাশ ঊর্ধ্বদের সংক্রামণ, মৃত্যু ঝুঁকি বেশি
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ভাইরোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সাইফ উল্লাহ মুন্সী বলেন, ‘বেশ কিছুদিন ধরেই আমরা সচেতনতা তৈরি করেছি। এখন সেই সচেতনতা প্রকাশের পালা।  যাদের বয়স পঞ্চাশের বেশি, তাদের বিষয়ে বেশি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। বিশ্বে করোনায় আক্রান্তদের অধিকাংশই বয়সে পঞ্চাশের ঊর্ধ্বে। আর তাদেরই মৃত্যু ঝুঁকি বেশি।’

‘‘আমাদের দেশের বয়স্কদের মধ্যে করোনা বিষয়ে প্রচারণা চালাতে হবে এবং তাদের সর্তক করতে হবে। পাশাপাশি আমাদেরও সতর্ক থাকতে হবে। জনসমাগম যুক্ত স্থান পরিহার করতে হবে। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে। সবচেয়ে প্রয়োজন আউটডোরে না থেকে ইনডোরে থাকা।’’

শিশুরা কি ঝুঁকিতে?
ডা. সাইফ উল্লাহ মুন্সী বলেন, ‘যে কোনো বয়সের মানুষই এই ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারে। তবে একটি বিষয় লক্ষণীয়, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত শিশুদের ক্ষেত্রে এখনও পর্যন্ত কোনও মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি।’

‘‘করোনা ভাইরাস কখনোই শিশু ও তরুণদের জন্য হুমকি নয়। দেখা যাচ্ছে অধিকাংশ ৫০ বছর ঊর্ধ্বে যারা আছে, তারাই সংক্রামিত হচ্ছে এবং মৃত্যুও হচ্ছে তাদেরই। তবে শিশু ও তরুণরা যে আক্রান্ত হবে না- এমনটা নয়। পরিসংখ্যান বলছে, শিশু ও তরুণদের মৃত্যু ঝুঁকি নেই।’’

তিনি মনে করেন শিশুদের ও তরুণদের শরীরে এই ভাইরাসটা ক্ষতি করতে পারছে না। আবার আরেকটি কারণ হতে পারে বয়স্করা বিভিন্ন রোগে আগে থেকেই অসুস্থ থাকে। আর সেই সুযোগটা নিচ্ছে এই ভাইরাস। সূত্র: চ্যানেল আই

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here