কুমিল্লায় ৩৮১ স্থানে পশুর হাট

0
45

দরজায় কড়া নাড়ছে পবিত্র ঈদুল আযহা। আর মাত্র ১১ দিন বাকি। ধর্মপ্রান মুসলমানরা আল্লাহর নৈকট্য লাভের উদ্দেশ্য পশু কোরবানী করবেন। তাই এ বছর কুমিল্লা জেলায় ৩৮১ টি স্পটে বসবে পশুর হাট। করোনা সংক্রমন রোধে এ বছর অর্ধেকে নেমে এসেছে পশুর হাট। চলতি সপ্তাহের শেষে জমে উঠবে পশুর হাট। তবে করোনা সংক্রমন প্রতিরোধে হাটের বিকল্প হিসেবে জোর প্রস্ততি চলছে অনলাইনে পশু ক্রয় বিক্রয় করার জন্য।

এক দিকে করোনা অন্যদিকে ঈদুল আযহা। এ দু’য়ের মাঝে সমন্বয় করতে হবে। তাই কুমিল্লা জেলা প্রশাসন গত বছরের তুলনায় এ বছর কোরবানীর পশুর হাট কমিয়ে এনেছেন। গত বছর অর্থ্যাৎ ২০১৯ সালে কুমিল্লা জেলায় ৭০৬ টি পশুর হাট পরিচালিত হয়। তবে এ বছর করোনা মহামারী আকার ধারণ করায় পশুর হাট কমিয়ে এনেছে জেলা প্রশাসন। এ বছর ৩৭৮ স্থানে বসছে কোরবানির পশুর হাট।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন ও সদর উপজেলা এলাকায় ২০ টি, সদর দক্ষিণে ২৩ টি, লালমাইয়ে ১ টি, বরুড়ায় ৪১ টি, ব্রাহ্মনপাড়ায় ২০, নাঙ্গলকোটে ৩২, মনোহরগঞ্জে ২১, দেবিদ্বারে ৩০, চৌদ্দগ্রামে ৩৫, লাকসামে ২১, দাউদকান্দিতে ২১, তিতাসে ১৪, হোমনা ১৮, বুড়িচং ২৫, চান্দিনায় ১৫, মুরাদনগরে ৩৪, মেঘনায় ৭ টি স্থানে বসছে কোরবানির পশুর হাট। এ বছর ৩৭৮ টি কোরবানির পশুর হাটের মধ্যে স্থায়ী হাট রয়েছে ৩৮ টি। বাকি ৩৪০ টি অস্থায়ী হাট ।

তবে এসব হাটে জনসমাগম হ্রাস এবং স্বাস্থ্য ঝুকি এড়াতে জেলা প্রশাসন ইজারাদারদের নির্দেশনা দিয়েছেন। কিভাবে হাটে ক্রয়-বিক্রয় চলবে। এছাড়াও স্বাস্থ্য ঝুকি কমাতে জেলা প্রশাসন থেকে একটি এ্যাপস উদ্বোধন করা হয়েছে।

এ বছর চাহিদার তুলনায় জেলায় পর্যাপ্ত পশু মজুদ রয়েছে। কুমিল্লা জেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. নজরুল ইসলাম বলেন, খামারী ও কৃষকরা ২ লক্ষ ৩১ হাজার ৬৫৪ টি পশু পালন করেছেন। কুমিল্লা জেলায় চাহিদা রযেছে ২ লক্ষ ২০ হাজার ৩০২ টি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here