কোভিড-১৯ নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিচ্ছে খোদ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

0
35

 প্রথম এ অভিযোগটি করেন যুগোস্লাভাকিয়ার বিখ্যাত ভাইরোরজিস্ট পিটার কলচিনোসক্সি, যিনি বর্তমানে মার্কিন ন্যাশনাল মেডিসিন সেন্টারের সহ প্রধান তিনি। গত বুধবার তিনি ব্লম মবার্গকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, মাস্ক পরা নিয়ে নিজেদের উপদেশ পরিবর্তন করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এখন তারা বলছে কোভিড-১৯ সংক্রমণ থামাতে পাবলিক প্লেসে মাস্ক পরা উচিত। এর আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছিল যে সুস্থ মানুষের মাস্ক পরার প্রয়োজন আছে, এ সম্পর্কে কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

উপসর্গহীনদের মাধ্যমে কোভিড-১৯ ছড়ানোর ঘটনা বিরল জানালেও, এখন সংস্থাটি আবার বলছে উপসর্গ না থাকা রোগীরাও ছড়াতে পারে ভাইরাস।

কোভিট-১৯ সংক্রমণ থেকে মুক্ত থাকতে ক্লোরিন বা ব্লিচিং ছড়িয়ে কোনো লাভ নেই। এ ধরনের রাসায়নিকের সংস্পর্শে চোখ ও মুখের ত্বক ও ঝিল্লি (মিউকাস মেমব্রেন) ক্ষতি করে। কিন্তু পরবর্তীতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে যে এগুলো ব্যবহারের দরকার আছে।

উচ্চ তাপমাত্রায় কোভিট সংক্রমণের ঝুঁকি কম বলা হয়েছিল প্রথম দিকে কিন্তু এখন বলছে যে কোনো তাপমাত্রাতেই এ ভাইরাস ছড়াতে পারে।

কোভিড-১৯ এর টেকনিক্যাল বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বিশেষজ্ঞ ডাক্তার মারিয়া ভ্যান কেরখোভ রয়টার্সকে বলেন, গবেষণায় নতুন নতুন তথ্য পাওয়া যেতেই পারে। একে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে বলাটা ঠিক নয়। রয়টার্স ও আল জাজিরা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here