কোমরের বেল্ট খুলে সাংবাদিককে পেটালেন চেয়ারম্যান

0
180

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে নিজের কোমরের বেল্ট খুলে অাল্লামা ইকবাল অনিক নামের এক সাংবাদিককে পিটিয়েছেন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান।

২৬ অক্টোবর, শুক্রবার দুপুরে রাজারহাট ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হক এই হামলা চালিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে রাজারহাট বাজারের কফি হাউস মোড়ে।

অনিক বাংলা.রিপোর্ট নামের একটি অনলাইন সংবাদমাধ্যমের নিজস্ব প্রতিবেদক। তাকে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, দুপুরে উপজেলার রাজারহাট ইউনিয়নের মেকুরটারী গ্রামের আবদুল আউয়ালের ছেলে সাংবাদিক অনিকের সঙ্গে স্থানীয় চেয়ারম্যান মো. এনামুল হকের বাকবিতণ্ডা হয়। এর এক পর্যায়ে চেয়ারম্যান তার কোমরে থাকা বেল্ট দিয়ে অনিককে বেধড়ক পেটান। এতে মাথায় গুরুতর চোট পান অনিক। পরে স্থানীয়রা ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখান থেকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

খবর পেয়ে রাজারহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃষ্ণ কুমার সরকার ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত সাংবাদিককে উদ্ধার করে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এ বিষয়ে ওসি প্রিয়.কমকে বলেন, ‘অনিকের বাবা ওই চেয়ারম্যান কাছে কৃষি ভর্তুকির টাকা চেয়েছিল। কিন্তু চেয়ারম্যান জানায়, তার ছেলে অনিক সেই টাকা নিয়ে গেছে। এরপর অনিকের বাবা অনিকের কাছে টাকার বিষয়ে জানতে চায়। তখন অনিক জানায়, সে কোনো টাকা অানেনি। এরপর অনিক চেয়ারম্যানের কাছে মিথ্যা কথা বলার কারণ জানতে যায়। তখন তার সঙ্গে ওই চেয়ারম্যানের কথাকাটাকাটি হয় এবং এক পর্যায়ে সে অনিককে কোমরের বেল্ট খুলে মারধর করে৷’

ওসি আরও বলেন, ‘চেয়ারম্যান কাজটা খুবই খারাপ করেছে। এই ঘটনার পর আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম; তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছি। সে সুস্থ হয়ে থানায় অভিযোগ দিলে আমরা তা অবশ্যই দেখব।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চেয়ারম্যান এনামুল মারধরের কথা অস্বীকার করে বলেন, ‘অনিক আমার সঙ্গে বাকবিতণ্ডা করছিল। এরই এক পর্যায়ে ধাক্কা দিলে তার মাথা দেয়ালে লেগে গুরুতর আহত হয়।’

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে এনামুল আরও বলেন, ‘অনিকের বাবা ঠাট্টা করে গত রাতে আমার কাছে কৃষি ভর্তুকির গমবীজ চেয়েছিল। তখন আমিও ঠাট্টা করে বলেছিলাম, ‘‘আপনার ছেলের কাছে গমবীজের টাকা দেওয়া হয়েছে।’’ পরে সে আজ সকালে ওই বিষয় নিয়ে আমার সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে যায়।’

অনিকের বাবা আউয়াল হোসেন বলেন, ‘আমি গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাতে গমবীজ চাইলে চেয়ারম্যান বলেন, ‘‘আপনার ছেলেকে টাকা দিয়েছি; সেখান থেকে গম বীজ কিনে নেন।’’ আজ সকালে ছেলেকে ঘটনাটি জানাই। পরে সে চেয়ারম্যানের কাছে কখন টাকা দিয়েছে, তা জানতে গেলে তাকে মারধর করা হয়।’

এদিকে সাংবাদিক অনিকের ওপর হামলায় ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে)।

ডিইউজের নির্বাহী পরিষদের সদস্য গোলাম মুজতবা ধ্রুব বলেন, ‘আমরা হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত চেয়ারম্যানকে দ্রুত গ্রেফতার ও বিচার দাবি করছি। না হলে সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।’

অনিক ডেফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে পড়াশোনা শেষে মাছরাঙ্গা টেলিভিশনে কর্মরত ছিলেন। কিছুদিন আগে তিনি বাংলা.রিপোর্টের নিজস্ব প্রতিবেদক হিসেবে যোগ দেন। প্রিয়.কম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here