খোকার সাধ

0
632

দেশের পরিবহন ব্যবস্থা নিয়ে তীব্র অসন্তুষ ছিল মানুষের মনে। শিশু কিশোররাও পরিবহনে নানাভাবে হয়রানির শিকার হয়েছেন। এ কারণে নিরাপদ সড়কের নামে ছাত্রছাত্রীরা যখন আন্দোলন করেছে লাইসেন্স চেক করেছে, বড়রা সমর্থন করেছে। কিন্তু এটি যদি ক্রমাগত চলতেই থাকে তবে খুবই বিরক্তিকর হবে। এ আন্দোলনকে বেশিদূর টেনে নেয়া যায় না।
এ আন্দোলন নিয়ে আমার যা মনে হয়েছে, ১. শিশুদের মনেও ক্ষমতা ভর করেছে। তারা মন্ত্রী- পুলিশের লাইসেন্স চেক করছে। এটার মধ্যে তারা এডভ্যাঞ্চার পেয়েছে। সহজে তা তারা ছাড়তে চাইছে না। ২. এই আান্দালন দীর্ঘ করার মাধ্যমে প্রয়োজনীয় রাজনৈতিক আন্দোলনকে স্থিমিত বা ভয়েস লেস করে দেয়া যাবে। যেমন ইতিমধ্যেই বিরোধী দল বিএনপির তত্বাবধায়ক সরকারের দাবি বা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি অনেকটাই স্থিমিত। ৩.ক্ষমতাসীন সরকারের মধ্যে আভ্যন্তরীণ কোন্দল কিছুটা প্রসমিত হবে। বিশেষ করে শাহজাহান খানকে মুচরে দেয়া গেছে। এখন শাহজাহান খানও অন্যদের মুচরাবে। যেমন এখন সারাদেশে বাস ট্রাক চলছে না। পরিশেষে একটি গল্প বলি। গল্পটি রবীন্দ্র নাথ ঠাকুরের। নাম ইচ্ছে পূরণ, বাবার ইচ্ছে ছেলে হতে আর ছেলে হতে চেয়েছে বাবা। দুজনের পরিবর্তিত রূপে দুজনাই কিছু দিন খুশি। কিছুদিন পরে আর তাদের এই পরিবর্তিত রূপ ভাললাগে না। তারা আবার তাদের আগের রূপেই ফিরে যতে চায়। এটাই হলো খোকার সাধ।

বিশ্বজিৎ দত্ত

নিবার্হী সম্পাদক, আমাদের অর্থনীতি

(ফেসবুক থেকে নেওয়া)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here