‘গোপালগঞ্জে স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর ধর্ষণ মামলা’

0
207

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে স্বামীর দেয়া অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা থেকে প্রেমিককে বাঁচাতে স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন মৌসুমী বেগম (২২) নামে এক নারী। এ ঘটনায় ওই এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৬ সালে উপজেলার দক্ষিণ জলিরপাড় গ্রামের সিরাজুল ইসলাম শেখের ছেলে মো: হোসেন শেখ (২১) এর সাথে একই গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের মেয়ে মৌসুমী আক্তারের বিয়ে হয়। তারা জলিরপাড় গ্রামে বংশী বাকচীর বাড়ীতে ঘর ভাড়া নেন। এ সুবাদে বাড়ীর মালিক বংশী বাকচীর সাথে মৌসুমী বেগমের অবৈধ প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

বিষয়টি মৌসুমীর স্বামী হোসেন শেখ জানতে পেরে গালমন্দ করেন। এতে বাড়ীর মালিক বংশী বাকচী হোসেন শেখকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এক পর্যায়ে গত ১০ সেপ্টেম্বর হোসেন শেখ বংশী বাকচীর বিরুদ্ধে আদালতে একটি অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন । মামলায় বংশী বাকচীর বিরুদ্ধে হোসেন শেখ তার স্ত্রী মৌসুমী বেগমকে অপহরণ ও ধর্ষণের চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ করেন।

এদিকে, এর তিনদিন পর ১৩ সেপ্টেম্বর হোসেন শেখের স্ত্রী মৌসুমী বেগম নিজে বাদী হয়ে আদালতে স্বামী হোসেন শেখ ও প্রতিবেশী মহিউদ্দিন শেখের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলায় মৌসুমী বেগম ষষ্ঠ শ্রেণি পড়ুয়া তার ছোট বোন সুমাইয়া খানমকে মহিউদ্দিন শেখ জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করেছেন বলে অভিযোগ করেন।

গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায়, মৌসুমী বেগম তার পরকিয়ার কারণে প্রেমিক বংশী বাকচীকে বাঁচাতে এ মামলা করেন।

এ ব্যাপারে এলাকাবাসী জানান, বংশী বাকচী একজন দুশ্চরিত্র লোক। একাধিকবার এলাকায় নানা অসামাজিক কার্যকলাপ এবং অপকর্ম করে জরিমানা দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেন স্থানীয়রা।

এ বিষয়ে বংশী বাকচীর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে বাড়িতে পাওয়া যায়নি। মৌসুমী বেগম মামলার বিষয়ে কোন কথা বলতে রাজি হননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here