চাঁদপুরে লঞ্চে আগুন, অল্পের জন্য ৫ শতাধিক যাত্রীর প্রাণরক্ষা

0
212

ল্পের জন্য বড় দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেলেন চাঁদপুর নৌ-টার্মিনাল থেকে ছাড়া লঞ্চ এমভি রফরফের পাঁচ শতাধিক যাত্রী।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টায় ঢাকার উদ্দেশে ছাড়ার সময় বৈদ্যুতিক সর্টসার্কিট থেকে লঞ্চটিতে ভয়াবহ আগুনের সূত্রপাত হয়। তবে ঘাটের কাছে হওয়ায় যাত্রীদের নিরাপদে নামিয়ে নেয়া সম্ভব হয়েছে। এতে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১৫ জন।

লঞ্চ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, অগ্নিকাণ্ডে লঞ্চের ইঞ্জিন, জেনারেটর, পাওয়ার সেকশন, হাওয়ার মেশিন, ডায়াস মেশিনসহ আট কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে চাঁদপুর উত্তর, দক্ষিণ ও নৌ-পায়ার স্টেশনের তিনটি ইউনিট পৌনে ১ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

রফ রফ লঞ্চের মাষ্টার মো. মামুনুর রশিদ জানান, ইঞ্জিনটি চালু করার পরপরই বিকট শব্দ হয়ে আগুনের সূত্রপাত হয়। এতে মারাত্মক দুর্ঘটনা এড়াতে তাত্ক্ষণিক যাত্রীদের টার্মিনালে নামিয়ে দেয়া হয়। এরপর লঞ্চে থাকা ও আশপাশের লঞ্চের স্টাফ, নৌ-টার্মিনালে থাকা ব্যবসায়ীরা এসে আগুন নির্বাপণের চেষ্টা চালায়। ২০ মিনিট পর ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে নেয়।

মেসার্স রাকিব ওয়াটার ওয়েজের কোম্পানির ম্যানেজার মো.ফরিদ আহম্মেদ জানান, অগ্নিকাণ্ডে লঞ্চের ইঞ্জিন, কেবিন ও আসবাবপত্রসহ প্রায় ৮ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

খবর পেয়ে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান, পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির, কোস্টগার্ড চাঁদপুর স্টেশন কমান্ডার লে. এনায়েত উল্লাহ, বন্দর ও পরিবহন কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

চাঁদপুর ফায়ার স্টেশনের উপ-পরিচালক রতন কুমার জানান, তিনটি ইউনিট চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনের সূত্রপাত ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্ত শেষে জানানো হবে। ইত্তেফাক

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here