জাতিসংঘে নিষিদ্ধ, ‘খাত’ নামের নতুন মাদক ঢুকছে দেশে

0
156

স্বাস্থ্য সচেতন কম বেশি মানুষের কাছে গ্রিন টি দারুন জনপ্রিয়। শুকনা পাতার গ্রিন টির নামে ‘খাত’ নামের নতুন মাদক ঢুকছে দেশে। জাতিসংঘের মাদক এবং অপরাধ ইউনিট এনপিএসকে মাদক হিসেবে চিহ্নিত করে নিষিদ্ধ করেছে গ্রিন টিকে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভেষজ এই উদ্ভিদটি ইয়াবার মত ভয়ঙ্কর এক মাদক। আর মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর বলছে, যে কোনো ধরনের মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে তারা।

গ্রিনটি বা সবুজ চায়ের মত দেখতে হলেও, এই শুকনা পাতার নাম ‘খাত’। যা ক্যাথিনন গ্রুপের উদ্ভিদ। নিউ সাইকোএকটিভ সাবস্টেন্স বা এনপিএস নামে পরিচিত বিশ্বব্যাপি। এই মাদক ইয়াবার মত স্টিমুলেন্ট ড্রাগ।

বিশ্লেষকরা বলছেন, পূর্ব আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে উৎপাদন হয় এই মাদক। সেখান থেকে ইউরোপ, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে এটি। এর ব্যবহারকারীরা চা এর মত, বা পাতা চিবিয়ে এই মাদক ব্যবহার করে থাকে। জাতিসংঘের মাদক এবং অপরাধ ইউনিটের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত বিশ্বের ১১০টি দেশ এনপিএসকে মাদক হিসেবে চিহ্নিত করে নিষিদ্ধ করেছে।

ওষুধ প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই মাদক গ্রহণের ফলে মানসিক ও শারীরিক উভয়ই ক্ষতিগ্রস্থ হয়। যা মানুষকে দ্রুতই মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়।

ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের ওষুধ প্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক আ ব ম ফারুক বলেছেন, এই মাদক একটু বেমি করে খেলে ছিমুনি আছে। তার চেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে, এই মাদক কেন্দ্রিয় স্নায়ুতন্ত্র যেমন মগজ থেকে শুরু করে দেহের সমস্ত নার্ভে তারা একটা নিকোরিয়া দেয়।

মাদক নিয়ন্ত্রক অধিদপ্তর বলছে, মাদক যে নামেই দেশের সীমায় আসুক তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক ফজলুর রহমান বলেছেন, এই ধরনের মাদক যে বা যারা বাংলাদেশে প্রবেশ করাচ্ছে তাদের সম্পূর্ণ সিন্ডিকেটদের ধরার জন্য চেষ্টা চলছে। সে বিষয়ে গোয়েন্দা বিভাগ কাজ করছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, দেশে যেকোনো মাদক প্রবেশই বিপদজনক। ট্রানজিট হিসেবে বাংলাদেশকে ব্যবহার করা হলেও সতর্ক থাকার পরামর্শ তাদের। সূত্র: ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here