জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ নিয়ে এখনো দ্বিধা-দ্বন্দ্বে হেফাজত

0
150

কাদশ জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে নির্বাচন কেন্দ্রিক ইসলামিক ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স (আইডিএ) নামে ১৫ দলীয় জোট ও জাতীয় পার্টির নেতৃত্বাধীন ইউনাইটেড ন্যাশনাল অ্যালায়েন্স (ইউএনএ) জোটের শীর্ষ নেতারা বলেছেন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে এসব জোট গঠিত হয়েছে। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত কোনো জোটের যুক্ত হয়নি। এই দলটি এককভাবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে সারাদেশে ৩’শ আসনে প্রার্থী দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। তবে, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ নির্বাচনে অংশগ্রহণ নিয়ে এখনো দ্বিধা-দ্বন্দ্বে রয়েছে বলে জানা গেছে।

ইসলামী ঐক্যজোট একাংশের চেয়ারম্যান মিজবাহুর রহমান বলেন, আমরা মহাজোটকে শক্তিশালী, কার্যকর ও জামায়াতের নেগেটিভ কর্মকান্ড তুলে ধরে দেশবাসীকে জানাতে ইসলামিক ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স (আইডিএ) জোট গঠন করেছি। এই জোট হবে মুক্তি যুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী একটি আদর্শিক জোট।

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ এর যুগ্ম মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ একটি অরাজনৈতিক সংগঠন। একাদশ জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার ব্যাপারে এখনো দ্বিধা-দ্বন্দ্বে রয়েছে। ইসলামিক ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স (আইডিএ) নামে একটি জোট গঠিত হয়েছে। এই জোটের কর্মকান্ড দেখে চিন্তা ভাবনা করব কি করা যায়।

বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের মহাসচিব সাবেক মহাসচিব ও ইসলামিক ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স (আইডিএ) মহাসচিব লায়ন এম এ আউয়াল এমপি বলেন, নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার ব্যাপারে ইসলামিক ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স (আইডিএ) এখনো কোনো চিন্তা ভাবনা করিনি। তবে, মহাজোটের সঙ্গে থেকে নির্বাচন করার পরিকল্পনা চলছে। এই জোট থেকে আমরা ৩’শ আসনে প্রার্থী দেয়ার চিন্তা ভাবনা করছি।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর মহাসচিব মাওলানা ইউনূস আহমদ বলেন, আমরা কোনো জোটেই যাচ্ছি না। ৩’শ আসনে প্রার্থী ঘোষণা করেছি। এ ব্যাপারে প্রার্থী যাচাইয়ের প্রস্তুতি চলছে। দেশের দক্ষিণাঞ্চল বরিশাল জেলায় আমাদের প্রার্থীদের অবস্থান খুবই ভাল। এছাড়াও কুড়িগ্রাম, লালমনির হাট, রংপুর, ঢাকার বিভিন্ন আসন নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী ও গাজী পুর জেলায়ও আমাদের দলের অবস্থান সুদৃঢ়।

বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মহাসচিব এম এ মতিন বলেন, আমরা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নেতৃত্বাধীন ইউনাইটেড ন্যাশনাল অ্যালায়েন্স (ইউএনএ) এর সঙ্গে যুক্ত আছি। এই জোটে এখনো ইসলামী ফ্রন্টের আসন সংখ্যা নিশ্চিত করা হয়নি। আমরা জাতীয় পার্টি কাছে ৩০ থেকে ৩৫ আসন চেয়েছি। বিএনপি নির্বাচনে না আসলে আমাদের আসন সংখ্যা বাড়বে। আর যদি বিএনপি নির্বাচনে আসে তখন জাতীয় পার্টি মহাটের সঙ্গে নির্বাচনী জোটে থাকার কারণে আমাদের আসন সংখ্যাও কমে যাবে। আমরা এক্ষেত্রে মহাজোটের কাছে ১১টি আসন দাবি করব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here