জীবনের বাস্তবতায় পাঠাও চালক অপূর্ব

0
186

ম্প্রতি নির্মিত হয়েছে খন্ড নাটক ‘জীবনের দিন-রাত’। রিফাত আদনান পাপনের রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন নাজমুল রনি। পাঠাও নিবেদিত, ফ্যাক্টর থ্রি সলিউশনস প্রযোজিত নাটকটি ১৯ এ নভেম্বের রাত ৯টায় নাগরিক টিভিতে প্রচার হবে।

নির্মাতা রনি জানান, নাটকের গল্পে দেখা যাবে জীবন বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান। খুব আদরে বড় হয়েছে তাই বাস্তব জ্ঞান নাই বললেই চলে। কোনোদিন একবিন্দু দায়িত্বও তাকে নিতে দেখা যায়নি। বেশি আদরে কিছুটা বিগড়ে গেছে বললেও ভুল হবে না।

পড়াশোনায় মন নেই সারাদিন বাইক নিয়ে ঘুরে বেড়ায়। কোন বাজে নেশা নেই কিন্তু মানসিকভাবে প্রচন্ড অলস। আর এই নিয়েই ভয়ানক ঝগড়া লেগে থাকে তার গার্লফ্রেন্ড মিতুর সাথে।

মিতু খুব তড়িৎকর্মা, সাহসী, বাস্তববাদী আর গোছালো টাইপ মেয়ে। প্রেমের ক্ষেত্রে বুঝি এমনই হয় দু’জন দুমেরুর না হলে প্রেম জমে না। কিন্তু এদের ক্ষেত্রে জমতে গিয়ে হুট করে ফাটলই ধরে গিয়েছিল। রাগের মাথায় জীবনের কাজকর্মে অতিষ্ট হয়ে সত্যি সত্যি ব্রেকআপ করে ফেলে মিতু। এবং তার ছায়াও যেন কখনো না পারায় এই কথা বলে রীতিমতো অপমান করে জীবনকে।

একদিন হুট করে স্ট্রোক করে মারা যায় তার বাবা। জীবনের পৃথিবীতে অন্ধকার নেমে আসে। যে ছেলে কোনোদিন বাজারে যায়নি তার কাঁধে এখন সংসারের ভার। পাল্টে যায় তার জীবনের গল্পটা। যে বাইক তার সারাদিনের সঙ্গী ছিল সেই বাইকই হয়ে যায় জীবিকার একমাত্র অবলম্বন। পাঠাও রাইডে সার্ভিস দিয়ে ফাঁকা সময়ে চালক হিসেবে ঘুরে বেড়ায় শহরের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্ত।

বাস্তবতায় ডুবে প্রেমিকা হারানোর কষ্টও এখন আর টলাতে পারে না জীবনকে। এমনই গল্প নিয়ে অপূর্ব-শবনম ফারিয়াকে জুঁটি করে নাজমুল রনি নির্মাণ করেছেন ‘জীবনের দিনরাত’ নাটকটি।

এতে অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন শেলী আহসান, আশরাফুল আলম সোহাগ, মনির, তালহা খান প্রমূখ।

নাটকটি প্রসঙ্গে অপূর্ব বলেন, ‘খুবই আহ্লাদি একটি ছেলের চরিত্রে কাজ করেছি। একটা সময় সেই ছেলেটাই চরম বাস্তববাদী হয়ে উঠে। নাটকের ম্যাসেজ হচ্ছে জীবন থেকে কেউ পালিয়ে বাঁচতে পারে না। কখনো না কখনো তাকে বাস্তবতার ঘানি টানতেই হয়। সূত্র: জাগোনিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here