জ্বর নিয়েও শুটিংয়ে শাকিব

0
188

দুই দিন ধরে গায়ে প্রচণ্ড জ্বর দেশের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক শাকিব খানের। জ্বরের কথা ঠিকমতো বলতে পারছিলেন না। এর মধ্যে দিব্যি শুটিং করে চলেছেন। ইউনিটের কাউকে নিজের শারীরিক অবস্থা টের পেতে দেননি। শাকিব বলেন, এর কারণ কদিন পরই ছবিটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দিতে চায় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। তাই এত কষ্ট সত্ত্বেও কাজটি শেষ করে দিতে হচ্ছে তাঁকে।

শাকিব খান জানান, আজ রোববার শুটিং করার পর গান ছাড়া ‘নোলক’ ছবির সব দৃশ্যের শুটিং শেষ হবে। এরপর গানের শুটিং করা হবে দেশের বাইরে। আজ শুটিং শেষ করে শাকিব পুরোপুরি সুস্থ হওয়া পর্যন্ত বিশ্রামে থাকবেন। ৫ সেপ্টেম্বর ঢাকার একটি পাঁচ তারকা হোটেলে শাকিব খানের নতুন ছবি ‘শাহেনশাহ’র মহরত অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে এই নায়কের বিপরীতে অভিনয়ের জন্য নতুন এক নায়িকার পরিচয় করিয়ে দেবেন পরিচালক শামীম আহমেদ। শাকিব খানের নতুন এই ছবিতে দুই নায়িকার আরেকজন নুসরাত ফারিয়া।

গায়ে এত জ্বর, এরপরও শুটিং করছেন! শাকিব খান বলেন, ‘আসলে শিল্পীদের জীবন এমনই। অনেক কিছু মনের মধ্যে চেপে রেখে কাজ করে যেতে হয়। তা ছাড়া প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে অনুরোধ ছিল যেন কাজটা শেষ করে দিই। আরেকটা বিষয় খেয়াল করলে দেখবেন, ঈদের পর মুক্তি পাওয়ার মতো নতুন কোনো ছবি নেই। সবকিছু ভেবে শিল্পী হিসেবে দায়িত্ব থেকে কাজটি করে দিচ্ছি।’

দেড় দশক ধরে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে কাজ করছেন শাকিব খান। বছর দুয়েক ধরে ভারতের বাংলা ছবিতেও কাজ করছেন। সিনেমার শুটিং করতে গিয়ে ব্যক্তি শাকিব তাঁর জীবনের অনেক চাওয়া-পাওয়া থেকে নিজেকে দূরে রাখতে বাধ্য হয়েছেন। শাকিব খান জানান, চলচ্চিত্রে কাজ করার এই সময় অনেক ঈদ মা-বাবা এবং অন্য প্রিয়জনদের ছাড়াই কাটাতে হয়েছে। এই ছবির শুটিংয়ের কারণেই কত আত্মীয় আর বন্ধুদের অনেক অনুষ্ঠানে থাকতে পারিনি। শুধু শুটিং করে গেছি, প্রযোজক-পরিচালকের দিকে তাকিয়ে কাজ করে যেতে হয়েছে। এমনও দিন গেছে, আমি টানা ১৮ ঘণ্টা শুটিং করেছি।’

‘নোলক’ ছবিতে শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করছেন ববি। শুরু থেকেই ছবিটি পরিচালনা করেন রাশেদ রাহা। কয়েকটি অভিযোগে সম্প্রতি পরিচালক থেকে রাশেদ রাহাকে বাদ দিয়ে প্রযোজক সাকিব ইরতেজা নিজেই পরিচালনার কাজ শুরু করেন। এরপর পরিচালক রাশেদ রাহা বিষয়টি নিয়ে চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি ও চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতিতে লিখিত অভিযোগ করেন, তাঁকে অন্যায়ভাবে সরিয়ে দিয়ে ছবিটির শুটিং করা হচ্ছে। অভিযোগের বিষয়ে গতকাল শনিবার দুই পক্ষকে নিয়ে বসার সিদ্ধান্ত নেয় চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি। রাশেদ রাহা এই সভায় উপস্থিত হলেও সাকিব ইরতেজা সেখানে যাননি। তিনি প্রথম আলোকে জানান, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি নয়, চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির নেতৃবৃন্দের সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়ে আছেন তিনি। আর রাশেদ রাহা বলেন, ‘চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি যে সিদ্ধান্ত দেবে, তা মেনে নেব। আশা করছি, আমি আমার ছবি ফিরে পাব।’ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম বলেন, ‘অভিযোগের বিষয়ে দুই পক্ষের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। শিগগিরই সিদ্ধান্ত জানানো হবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here