তিউনিসিয়ায় শরীরে আগুন লাগিয়ে সাংবাদিকের আত্মাহুতি

0
156

তিউনিসিয়ায় নিজের শরীরে আগুন লাগিয়ে আত্মাহুতি দিয়ে সোমবার দেশটির প্রাদেশিক শহর কাসেরিনের ক্রমবর্ধমান বেকারত্ব, দারিদ্র্য ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাংবাদিক আবদেরাজ্জাক জোরগুই। মঙ্গলবার তার মৃত্যুর খবর চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু করে উত্তর আফ্রিকান দেশটির নাগরিকরা। পুলিশের সাথে ব্যাপক সংঘর্ষেও জড়িয়ে পড়ে তারা। ডয়চে ভেলে

সাংবাদিক জোরগুই অনলাইনে একটি ভিডিও প্রকাশ করেন। সেখানে তিনি বলেন, ‘কাসারিনের যুবকদের জন্য, যাদের আসলে কোনও অস্তিত্বই নেই, আমি আমার বিপ্লব শুরু করলাম। আর তাই আমি নিজের শরীরে আগুন লাগাতে যাচ্ছি।’

সোমবার দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পরপরই মৃত্যু হয় তার। জারগুইয়ের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ার পর মঙ্গলবার ভোর থেকেই কাসারিনের রাস্তা আটকে বিক্ষোভ শুরু করে কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী। এরপর পুলিশ এসে তাদের ছত্রভঙ্গ করতে চাইলে সংঘর্ষ বাধে। কয়েক রাউন্ড টিয়ারশেল ছোঁড়ে পুলিশ। এসময় বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারীকে আটকও করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালের ১৭ ডিসেম্বর মোহাম্মদ বোয়াজিজি বেকারত্ব, খাদ্যাভাব, দুর্নীতি, বাকস্বাধীনতার অভাব ও চরম দারিদ্র্যের অভিযোগ এনে আত্মাহুতি দিলে তিউনেসিয়ার তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জিন এল আবিদিন বেন আলির পদত্যাগ দাবি করে রাস্তায় নামে কয়েক হাজার মানুষ। তিউনেসিয়ার ওই বিক্ষেভের ঘটনার মধ্যদিয়েই আরববিশ্বে শুরু হয় ‘আরব বসন্ত’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here