নারী ভারোত্তোলক ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধনে ছিলেন না ভারোত্তোলনের কেউই

0
220

একজন নারী খেলোয়াড়কে ধর্ষণের প্রতিবাদে গতকাল প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করে প্রতিবাদ জানায় ক্রীড়াবিদ আর ক্রীড়া সংগঠকরা। ওই নারী যে ইভেন্টের খেলোয়াড় ছিলেন, সেই ভারোত্তোলন ক্রীড়া ফেডারেশনের কোনো খেলোয়াড়, কোচ এবং কর্মকর্তাদের কেউই মানববন্ধনে ছিলেন না।

একজন সতীর্থকে যৌন নিপীড়নের প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধনে নারী ভারোত্তোলকরাই বেশি উপস্থিত হবেন, এমনটিই মনে করা হয়েছিল। ভারোত্তোলনের কেউ না থাকার বিষয়টিই ছিল মানববন্ধনের সবচেয়ে আলেচিত বিষয়।

ভারোত্তোলনের কোনো খেলোয়াড় ও কর্মকর্তারা কেন আসেননি? এমন প্রশ্নের জবাবে মানববন্ধনের প্রধান উদ্যোক্তা সাবেক ব্যাডমিন্টন তারকা ও মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামরুন নাহার ডানা বলেন, আমি সবাইকে বলেছি। কেন আসেননি সেটা তারাই বলতে পারবেন।

জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক দুই অধিনায়ক রকিবুল হাসান, গাজী আশরাফ হোসেন লিপু, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেডের ডাইরেক্টর ইনচার্জ লোকমান হোসেন ভূঁইয়া, ক্রিকেট কোচ জালাল আহমেদ চৌধুরী, সাবেক দুই ফুটবলার হাসানুজ্জামান খান বাবলু, আবদুল গাফফার, বাফুফের নির্বাহী কমিটির সদস্য ফজলুর রহমান বাবুল, শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরী, বাংলাদেশ রোলার স্কেটিং ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আসিফুল হাসান, নারী কুস্তিগীর শিরিন সুলতানা, সাবেক নারী ফুটবলার রেহানা পারভীন, হ্যান্ডবল কোচ কামরুল ইসলাম কিরণ, সাবেক বক্সার আবদুল হালিম অংশ নিয়েছেন এ মানববন্ধনে।

সবাই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়েছেন। সে সঙ্গে প্রত্যেকটি ক্রীড়া ফেডারেশনের নির্বাহী কমিটিতে ৩০ ভাগ নারী প্রতিনিধির নিশ্চয়তারও দাবি করেছেন।

উল্লেখ্য, গত ১৩ সেপ্টেম্বর ১৮ বছরের একজন নারী ভারোত্তোলক ফেডারেশনের অফিস সহকারী সোহাগ আলী দ্বারা ধর্ষিত হয়েছে বলে ওই নারী ভারোত্তোলকের মামা নাজমুল হক লিখিত অভিযোগ করেন।

এ নিয়ে বাংলাদেশ ভারোত্তোলন ফেডারেশন ও জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ ভিন্ন ভিন্ন দুটি তদন্ত কমিটিও গঠন করেছেন। যৌন নিপীড়নের শিকার মেয়ের মা সালমা আক্তার বাদী হয়ে পল্টন থানায় মামলা করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here