নিউজিল্যান্ডে আবার সংক্রমণ! কোয়ারেন্টাইনে কড়া প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা

0
52

সম্প্রতিই নিজেদের ‘করোনা-মুক্ত’ হিসেবে ঘোষণা করেছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু সপ্তাহ ঘোরার আগেই গত কাল ফের নতুন দু’টি সংক্রমণের খবর। যা নিয়ে বৃহস্পতিবার নিজের প্রশাসনেরই সমালোচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডের্ন। তার কথায়, ‘‘বোঝাই যাচ্ছে, ভুলটা আমাদের। এটা মেনে নেয়া যায় না। আগামী দিনে যাতে এমনটা না-ঘটে, তা নিশ্চিত করতেই হবে।’’ আনন্দবাজার

সম্প্রতি ব্রিটেন থেকে অস্ট্রেলিয়া হয়ে নিউজিল্যান্ডে ফেরা দুই নারীর শরীরে সংক্রমণ মিলেছে। মৃত্যুপথযাত্রী আত্মীয়কে দেখতে অকল্যান্ডের আইসোলেশন-হোটেল ছেড়ে তাদের নিজেদের গাড়িতে ওয়েলিংটনের বাড়ি যেতে দেয়া হয়েছিল মানবিকতার খাতিরেই। আজ জেসিন্ডা সরাসরি সেই সিদ্ধান্তের দিকে আঙুল না-তুললেও জানান, কোয়ারেন্টাইন পদ্ধতি যথাযথভাবে মানা হচ্ছে কি না, এ বার থেকে তা দেখবে সেনাবাহিনী। আর্ডেন বলেন, ‘‘গোড়া থেকে সীমান্তে কড়া নজরদারি চালিয়েই সাফল্য পেয়েছি। সেই কারণেই বিদেশ থেকে যারা ফিরছেন, তাদের সরকারি বন্দোবস্ত মানতেই হবে।’’

দ্বিতীয় দফার করোনা-ঝড় ভাবাচ্ছে চীনকেও। পাঁচ দিনে ১৩৭টি নতুন সংক্রমণের পরেই ফের নড়ে বসেছে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিয়ের প্রশাসন। দু’টি প্রধান বিমানবন্দর থেকে ৭০ শতাংশেরও বেশি অন্তর্দেশীয় ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে বলে খবর। সংখ্যাটা প্রায় ১২৬০। বেইজিংয়ের বেশ কিছু স্কুলও ফের বন্ধ হয়ে গেল আজ থেকে

এত দিন কিছুটা স্বস্তির খবর আসছিল জার্মানি থেকে। গত ২৪ ঘণ্টায় সে দেশেও নতুন করে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩০ জনের। আবাসন ধরে ধরে বার্লিনের বেশ কিছু এলাকা কোয়ারেন্টাইন করা হয়েছে বলে খবর। আজই জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিতে গিয়ে হন্ডুরাসের প্রেসিডেন্ট হুয়ান অর্ল্যান্ডো জানান, তাঁর করোনা-পরীক্ষার ফল পজিটিভ এসেছে। আক্রান্ত ফার্স্ট লেডিও।

বুধবার খবর মিলেছে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বাড়িতে বসেছে জীবাণুনাশক সুড়ঙ্গ। ক্রেমলিনেও। সংক্রমণের নিরিখে রাশিয়া এখন তৃতীয়। আর এ জন্য পুতিনকেই বিঁধছেন বিরোধীরা।

আমেরিকায় মৃত্যুমিছিল বেড়েই চলেছে। আক্রান্ত ২২ লাখ ছাড়িয়েছে। মৃত প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার। জন্স হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সমীক্ষা বলছে— কিছু প্রদেশে কমলেও আলস্কা, অ্যারিজিনা, ক্যালিফর্নিয়া, ফ্লরিডা, কানসাসের মতো ২১টি প্রদেশে গত এক সপ্তাহে নতুন সংক্রমণের গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী। দেশেরই একটি সমীক্ষা বলছে, আগামী অক্টোবরে মধ্যে মৃতের সংখ্যা ২ লাখ হবে। মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স যদিও বলছেন, ‘‘দ্বিতীয় ঝড়ের কোনও ব্যাপারই নেই। সংবাদমাধ্যম ভয় দেখাচ্ছে মার্কিন জনতাকে।’’ একটি কাগজে কলম ধরেন তিনি। প্রেসিডেন্টের সুরেই তাকে বলতে শোনা যায়, ‘‘আগে তো রোজ আড়াই হাজার করে মৃত্যু হচ্ছিল, এখন সংখ্যাটা দাঁড়িয়েছে গড়ে ৭৫০! পরিস্থিতি অনেকটাই ভালো।’’

বিশ্বজোড়া ত্রাসের আবহে তাই প্রতিষেধকের অপেক্ষাই বড় হয়ে দাঁড়াচ্ছে। মঙ্গলবার স্টেরয়েড ডেক্সামেথাসোনকে ‘জীবনদায়ী’ হিসেবে দাবি করেছিল অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়। এই গবেষণার জন্য বুধবার তাদের অভিনন্দন জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here