নির্বাচন নিয়ে সংলাপ নয়, ‘কেবল শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য’ সংলাপ : কাদের

0
178

রাজনৈতিক দলগুলোকে গণভবনে নির্বাচন পরবর্তী ‘সংলাপে ডাকার’ খবর দেওয়ার একদিন বাদেই উল্টো খবর দিলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সোমবার তিনি বলেছেন, নির্বাচন নিয়ে সংলাপের কোনো বিষয় ‘এখন নেই’। ‘কেবল শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য’ রাজনৈতিক দলগুলোকে ডাকা হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন নিয়ে সংলাপের কোন বিষয় নেই। যে নির্বাচন নিয়ে গণতান্ত্রিক বিশ্বে কোন সংশয় নেই। গণতান্ত্রিক বিশ্বের কোন প্রশ্ন নেই সেখানে সংলাপের প্রশ্ন হাস্যকর।

তিনি বলেন, তাই সংলাপ নয়। প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের আগে সবকয়টি রাজনৈতিক দলকে গণভবনে সংলাপের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। বিএনপি ঐক্যফ্রন্টসহ ৭৫টা দল তখন সংলাপে অংশ নিয়েছিল। তাদের সঙ্গে নির্বাচন পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য তাদের আমন্ত্রণ জানাতে চান প্রধানমন্ত্রী। এখানে কোন সংলাপের আমন্ত্রণ জানাচ্ছি না। সংলাপ নয়, শুভেচ্ছা বিনিময় হবে।

একাদশ সংসদ নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যানের পর জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নতুন নির্বাচনের পথ তৈরি করতে সংলাপের আহ্বান জানিয়েছিল সরকারকে।

সে প্রেক্ষাপটে কাদের রোববার সাংবাদিকদের বলেছিলেন, “যেসব দল ও জোটের সাথে সংলাপ হয়েছিল, তাদেরকে আবার চিঠি দিয়ে সংলাপে ডাকবেন তিনি (প্রধানমন্ত্রী)।”

এবারের নির্বাচনের আগে বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টসহ বিভিন্ন দলের সঙ্গে সংলাপ করেছিলেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে সেই সংলাপ ‘অর্থবহ হয়নি’ বলে মনে করেন বিএনপি নেতারা।

কাদেরের মুখে নতুন করে সংলাপের খবর শুনে তার প্রতিক্রিয়ায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সোমবারই বলেন, আলোচনার বিষয়বস্তু জানা গেলে তারা এই আলোচনার প্রস্তাব বিবেচনা করবেন।

এরপর একইদিন ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় বলেন, “নির্বাচন নিয়ে সংলাপের কোনো বিষয় নেই।

“যেই নির্বাচন নিয়ে সারা বিশ্বের কোথাও কোনো সংশয় নেই, গণতান্ত্রিক বিশ্ব থেকে উষ্ণ অভিনন্দন জানিয়েছে, কোনো বিতর্ক কোনো প্রশ্ন না করেই। সেখানে জাতীয় নির্বাচন নিয়ে সংলাপের কোনো সুযোগ নেই। নির্বাচন নিয়ে কোনো সংলাপ নয়।”

সেক্ষেত্রে গণভবনে দলগুলোকে ডাকা হবে কেন- সেই উত্তরও দেন মন্ত্রী কাদের।

“জাতীয় নির্বাচনের আগে ঐক্যফ্রন্টসহ ৭৫টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ হয়েছে। নির্বাচন পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য চিঠি দিয়ে আবারো তাদেরকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। আর সেটা শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য। এখানে কোনো সংলাপ নয়।”

“কোনো সংলাপের আমন্ত্রণ আমরা জানাচ্ছি না,” বলেন তিনি।

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয় উদযাপন করতে ১৯ তারিখ আওয়ামী লীগের জনসমাবেশ সফল করতে মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ওই বর্ধিত সভা আয়োজন করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here