নৌ খাতে পরিবেশ বান্ধব ব্যবস্থা গ্রহণের তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর

0
197

রিবেশবান্ধব পরিবহন ব্যবস্থা নিশ্চিতে নৌ পরিবহন খাতে যথাযথ কর্মপন্থা গ্রহনের তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার বিকেলে দ্বিতীয় ‘সাউথ এশিয়া মেরিটাইম অ্যান্ড লজিস্টিক ফোরাম ২০১৮’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ তাগিদ দেন। এছাড়া কম কার্বন নির্গমনকে প্রাধান্য দিয়ে আধুনিক দক্ষ, পরিবেশ বান্ধব পরিবহন ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে নৌ পরিবহন খাতে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

নদী মাতৃক এই দেশের ওপর দিয়ে ছোট বড় ৭০০টি নদ-নদী প্রবাহিত হয়েছে। এই জলরাশি ব্যবহার করে দেশে নৌ পরিবহন ব্যবস্থা গড়ে উঠেছে। এই খাতকে আরো যুগপোযোগী করে গড়ে তোলাসহ দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক বাণিজ্যের বাধা ও সমাধান, অবকাঠামো উন্নয়নে বিনিয়োগে আকৃষ্ট এবং নতুন প্রযুক্তির উদ্ভাবন করতে দক্ষিণ এশিয়া মেরিটাইম অ্যান্ড লজিস্টিক ফোরামের যাত্রা।

ঢাকার একটি হোটেলে দ্বিতীয় এই সম্মেলনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দু’দিন ধরে চলা এই সম্মেলনে ভারত, শ্রীলঙ্কাসহ ২০টি দেশের মন্ত্রীসহ নৌখাত সংশ্লিষ্টরা যোগ দেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নদী ও নৌযান উন্নয়নে এবং মানুষ ও পণ্য পরিবহনে নদীর নাব্যতা রক্ষা, নদীর মাধ্যমে জলাধার সৃষ্টি ও নিরাপদ নদী পথ উন্নয়নে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। নাব্যতা রক্ষার জন্য নদীগুলোতে ড্রেজিং-এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। আমাদের ন্যাশনাল ইন্টিগ্রেটেড মাল্টিমোডাল ট্রান্সপোর্ট পলিসিতেও অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন ব্যবস্থার উপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে।’

এ সময় পরিবহন খাতে দক্ষিণ এশিয়ার সম্ভাবনা কাজে লাগিয়ে এ অঞ্চলের মানুষের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্ব দেয়ার কথাও বলেন প্রধানমন্ত্রী।

বিগত এক দশকে জিডিপি’র প্রবৃদ্ধি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দারিদ্রের হার ২০০৫-০৬ সালে ৪১.৫ শতাংশ হতে ২০১৮ সালে ২১.৮ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। আওয়ামী সরকারের সময়েই মাথাপিছু আয় ৫৪৩ মার্কিন ডলার হতে উন্নীত হয়ে ১ হাজার ৭৫১ ডলারে উন্নীত হয়েছে।’

এই সরকারের সময়েই দেশের মানুষের সবচেয়ে বেশি অর্থনৈতিক উন্নয়ন হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘২০১৫ সালে বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশকে নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশের স্বীকৃতি এবং ২০১৮ সালে বাংলাদেশকে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের সনদ দিয়েছে জাতিসংঘ। আমাদের প্রত্যাশা ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয় এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ।’

এছাড়া দারিদ্র বিমোচন, নারীর ক্ষমতায়ন, শিশু ও মাতৃমৃত্যু হার হ্রাস, নিরক্ষরতা দূরীকরণ, স্যানিটেশন, সুপেয় পানির প্রাপ্যতা সহ বিভিন্ন সূচকে বাংলাদেশ অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে বলেও জানান তিনি।

এ সময় নেদারল্যান্ডস সরকারের সহযোগিতায় বাংলাদেশ ডেল্টা প্ল্যান-২১০০ প্রস্তুত হয়েছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

– ডিবিসি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here