প্রচারের প্রথম দিনেই বিএনপির অভিযোগ

0
175

একাদশ নির্বাচনের প্রার্থীদের মধ্যে সোমবার (১০ ডিসেম্বর) প্রতীক বরাদ্দ করা হয়েছে। প্রতীক পাওয়ার পরপর সারাদেশে প্রার্থীরা প্রচার শুরু করেছেন। প্রথম দিনেই দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিএনপি প্রার্থীরা হামলা ও আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ করেছে।

কুমিল্লা প্রতিনিধি জানিয়েছেন, কুমিল্লা-৬ (সদর) আসনে বিএনপি ও আওয়ামী লীগ প্রার্থী পাল্টিপাল্টি অভিযোগ করেছেন। বিএনপি প্রার্থী আমিন উর রশীদ ইয়াছিন তার মিছিলে গুলিককটেল বিস্ফোরণসহ হামলার অভিযোগ করেছেন। তার দাবি, হামলায় তার অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। তিনি নির্বাচন পরিচালনা কমিটির মিডিয়া সেল লিখিত অভিযোগ করেছেন বলে জানিয়েছেন।

তবে জেলা রিটার্নিং অফিসার ও কোতোয়ালি থানা পুলিশ জানিয়েছে, এ ধরনের কোনও অভিযোগ তারা পাননি। কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এ ধরনের অভিযোগকে মিথ্যা বলে অভিহিত করে পাল্টা অভিযোগ করেছেপ্রতিপক্ষের হামলায় তাদেরই এক কর্মী আহত হয়েছে।

বিএনপির অভিযোগকুমিল্লা-৬ সদর আসনের বিভিন্ন স্থানে ধানের শীষ প্রতীকের পক্ষে তাদের  শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় আওয়ামী লীগের সমর্থকরা অন্তত ১০টি স্থানে গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এ ঘটনায় বিএনপির অর্ধশত নেতাকর্মী আহত হয়। নগরীর ২২নং ওয়ার্ডের শোভাযাত্রা চলাকালে ছাত্রলীগের কর্মীরা হামলা করে। এসময় গুলিবর্ষণ ও ককটেল নিক্ষেপ করে। গুলিতে যুবদল কর্মী মোখলেছ গুলিবিদ্ধ হয়। এছাড়াও কমপক্ষে ১০ নেতাকর্মী আহত হয়। এ ঘটনায় কাউন্সিলর মাহবুবুর রহমানসহ ১০জন আহত হয়। আমড়াতলী ইউনিয়নের ৩টি স্থানে হামলা করা হয়।

এ বিষয়ে কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আবিদুর রহমান জাহাঙ্গীর জানানবিএনপির অভিযোগ সঠিক নয়। বরং তাদের হামলায় কচুয়া এলাকার সানী নামে তাদের এক কর্মী মারাত্মক আহত হয়েছেন।

কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সালাউদ্দিন  জানানএই হামলার ঘটনা সম্পর্কে তিনি কিছু জানি না। এ বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেনি।

কুমিল্লা জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর জানানএ বিষয়ে তার কিছু জানা নেই। কেউ কোনও অভিযোগও করেনি। লিখিত অভিযোগ পেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রাজশাহী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, রাজশাহী-২ (সদর) আসনের মহাজোটের প্রার্থী ফজলে হোসেন বাদশার বিরুদ্ধে নির্বাচনি আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগ উঠেছে। বিএনপি প্রার্থী মিজানুর রহমান মিনু রিটার্নিং অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

মিনুর অভিযোগ, তিনি নির্ধারিত সাইজের চেয়ে বড় ফেস্টুন টানিয়েছেন নির্বাচনি এলাকাজুড়ে। বিষয়টি নিয়ে সোমবার বিকালে রাজশাহীর জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা এসএম আবদুল কাদেরের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগে ব্যাপারে রাজশাহী জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামনুল আহমেদ অনীক বলেন, তদন্ত করে নির্বাচন কমিশন এ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

রাজশাহীতে বড় সাইজের পোস্টার ছাপানোর অভিযোগজামালপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ী) আসনে বিএনপি প্রার্থী ফরিদুল কবীর তালুকদার শামীমের নির্বাচনি প্রচারের মাইক ও ইজিবাইক ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার (১০ ডিসেম্বর) বিকালে যুবলীগের কর্মীরা সরিষাবাড়ী পৌরসভার শিমলা বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটায় বলে তিনি অভিযোগ করেন।

ফরিদুল কবীর তালুকদার বলেন, প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পর তিনি দু’টি ইজিবাইকে করে নির্বাচনি প্রচার মাইক নামান। একটি ইজিবাইক সরিষাবাড়ী পৌরসভার শিমলা বাজার এলাকায় প্রধান সড়কে ধানের শীষ প্রতীকের প্রচার চালাচ্ছিল। এসময় স্থানীয় যুবলীগকর্মী মনোয়ার হোসেন ও মুকুল মিয়া ইজিবাইকটি আটক করে।

তারা ইজিবাইকের চালক লাভলুকে ভয়ভীতি দেখায় এবং মারধর করে তার মোবাইল ফোন সেট ছিনিয়ে নেয়। এক পর্যায়ে তারা একটি প্রচার মাইক ও দুটি হর্নসহ ইজিবাইকটি ভাঙচুর করে দ্রুত কেটে পড়ে।

সরিষাবাড়ী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এ কে এম আশরাফুল ইসলাম বলেন,‘বিএনপি দলীয় প্রার্থীর প্রচার মাইক ভাঙচুর হয়েছে কিনা তা আমার জানা নেই। তবে মনোয়ার হোসেন ও মুকুল মিয়া নামে যে দু’জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে তারা যুবলীগের কেউ নয়।’

সরিষাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজেদুর রহমান বলেন, শিমলা বাজার এলাকায় বিএনপি প্রার্থীর প্রচার মাইক ভাঙচুরের খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে গেলেও হামলাকারী কাউকে আটক করা যায়নি। ঘটনাস্থল থেকে মাইক ও হর্ন জব্দ করে থানায় আনা হয়েছে। এ ব্যাপারে বিএনপি প্রার্থীর পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গা-১ আসনে বিএনপির প্রার্থী শরীফুজ্জামান শরীফের গাড়ি বহরে হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে আলমডাঙ্গা উপজেলার মুন্সিগঞ্জ পশুহাট এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। দুর্বৃত্তরা শরীফুজ্জমানের দুটি মাইক্রোবাসেও ব্যাপক ভাঙচুর করেছে। এতে দুই জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে বিএনপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।

নেতাকর্মীরা জানান, আলমডাঙ্গা উপজেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে ফেরার পথে শরীফুজ্জামানের গাড়িবহরে একদল দুর্বৃত্ত হামলা চালায়। এসময় তারা দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

চুয়াডাঙ্গা-২ আসনে বিএনপির প্রার্থী মাহমুদ হাসান খাঁন বাবুর নির্বাচনি  মিছিলে হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার সন্ধ্যায় জীবননগর উপজেলা শহরের চার রাস্তার মোড়ে এ হামলার ঘটনা ঘটে। ধানের শীষের মিছিলটিতে ছাত্রলীগ-যুবলীগ হামলা চালিয়েছে বলে বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here