প্রধানমন্ত্রী হয়েই প্রতিশোধ নিলেন ইমরান?

0
185

মরান খান দেশকে বদলে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েই ক্ষমতায় এসেছেন। তবে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর তাঁর প্রভাবে প্রথম দৃশ্যমান পরিবর্তন এল ক্রিকেটেই। ২০২০ সাল পর্যন্ত মেয়াদ থাকলেও পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) সভাপতি পদ থেকে সরে গেলেন নজম শেঠি। খ্যাতিমান এই সাংবাদিক নিজের সর্বসাম্প্রতিক কলামগুলোয় ইমরানের নির্বাচিত হওয়ার পেছনে সেনাবাহিনীর কথিত অভিযোগ নিয়ে একাধিক কলাম লিখেছিলেন। তা ছাড়া ২০১৩ সালে ইমরান বনাম নজমের লড়াই আদালতে মানহানির মামলা পর্যন্ত গড়িয়েছিল। পিসিবির নতুন প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন এহসান মানি।

প্রায় এক দশক ধরে নিজ দেশে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত পাকিস্তানের ক্রিকেটকে হারিয়ে যেতে দেননি নজম। তাঁর সময়েই পাকিস্তান চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জিতেছে। টেস্ট ও টি-টোয়েন্টিতেও পেয়েছে স্মরণীয় সাফল্য। টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে উঠেছে পাকিস্তান। তাঁর সময়েই পাকিস্তান নিজেদের টি-টোয়েন্টি লিগ পিএসএল চালু করে। সীমিত পরিসরে হলেও বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক ম্যাচও অনুষ্ঠিত হয় পাকিস্তানে। পিএসএলের ফাইনাল ম্যাচ পাকিস্তানে এনে ধীরে ধীরে আস্থা তৈরির কাজও করছিল নজমের নেতৃত্বাধীন পিসিবি।

তবে ইমরান ক্ষমতা আসতে না আসতেই দায়িত্ব থেকে সরে গেলেন প্রবীণ এই সাংবাদিক। নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী কিংবা তাঁর অনুগতদের পক্ষ থেকে নজমকে চাপ দেওয়া হয়েছিল কি না, তা পরিষ্কার নয়। তবে খুব সম্ভবত সরে যেতে হবেই, এই অনিবার্য পরিণতির কথা ভেবে আগেই সসম্মানে বিদায় নিলেন নজম। যদিও কিছুদিন আগে পাকিস্তানের সবচেয়ে প্রভাবশালী পত্রিকা ডন এক সম্পাদকীয়তে ইমরানের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল, ব্যক্তিগত লড়াইকে টেনে এনে নজমকে যেন সরে যেতে বাধ্য করা না হয়। তবে ইমরান প্রতিশোধ নিতেনই। এমনই আভাস মিলছিল গত কিছুদিন।

পাকিস্তানের খ্যাতিমান এই বুদ্ধিজীবীর সঙ্গে ইমরান খানের সম্পর্কের চূড়ান্ত অবনতি হয় ২০১৩ সালে। সেবার নির্বাচনে পাঞ্জাবের অন্তর্বর্তী প্রাদেশিক সরকারের দায়িত্বে ছিলেন নজম। সে সময় ইমরান অভিযোগ করেছিলেন, নজম তখনকার প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের পক্ষে ভোটে কারচুপি করেছেন। ইমরানের বিরুদ্ধে সে সময় মানহানির মামলাও করেছিলেন নজম।

নজম সরাসরি ইমরানকে লেখা আনুষ্ঠানিক চিঠিতেই পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। সেখানে তিনি যে বৈধভাবে নির্বাচিত হয়েছিলেন এবং ২০২০ সাল পর্যন্ত মেয়াদ ছিল, এই দুটি কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করেছেন। উল্লেখ করেছেন পাকিস্তানের ক্রিকেটের ভালোর জন্যই সব সময় কাজ করেছেন, সে কথাও। ইমরান তাঁকে সরিয়ে দিলে সেটি যে অন্যায় হতো, সেই অবস্থান তৈরি করেই পদত্যাগ করেছেন নজম। শুধু তা-ই নয়, পদত্যাগপত্রের ছবি টুইট করে লিখেছেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রীর শপথ নেওয়ারই অপেক্ষা করছিলাম পদত্যাগপত্র জমা দেওয়ার জন্য।’

ইমরানও দেরি করেননি। ভারপ্রাপ্ত প্রধান হিসেবে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের সাবেক প্রধান এহসান মানিকে পিসিবি চেয়ারম্যান বানিয়েছেন। পরে গঠনতন্ত্র

– প্রথম আলো

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here