প্রেস ক্লাবে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গোলাম সারওয়ারকে শ্রদ্ধা

0
200

গণমাধ্যম ডেস্ক: প্রবীণ সাংবাদিক, সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ারকে জাতীয় প্রেস ক্লাবে সশস্ত্র সালামের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৬ আগস্ট) ঢাকা জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে এই শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে জোহরের নামাজের পর প্রেস ক্লাবে তার চতুর্থ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

গোলাম সারওয়ারের জানাজার পর রাষ্ট্রপতির পক্ষে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রপতির সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মো. সরোয়ার হোসেন, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানান ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি আশরাফুল আলম খোকন এবং তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোল্লা জালাল, সাধারণ সম্পাদক শাবান মাহমুদ, সহ সভাপতি সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, কোষাধ্যক্ষ দীপ আজাদ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু জাফর সূর্য, সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, সম্পাদক পরিষদের পক্ষ থেকে ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম, প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান, বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম, ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত, বিএনপির পক্ষে ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিএফইউজের সাবেক সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল, তথ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে তথ্যমন্ত্রীহাসানুল হক ইনু এবং প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন এবং বিএফইউজের (একাংশ) সভাপতি রুহুল আমিন গাজী।

এসময় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ‘শুধু জাতীয় প্রেসক্লাব নয়, আমরা সবাই শোকাহত। জাতীয় প্রেসক্লাব তাকে ছাড়া কল্পনা করা যায় না। তার পরামর্শ ও সহযোগিতা সবসময় পেয়ে আসছি। আমরা গভীরভাবে বেদনাক্রান্ত। শুধু প্রেসক্লাব নয়, সাংবাদিক সমাজ দীর্ঘদিন তার অভাব অনুভব করবে।

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘আজকে উনার মতো অভিভাবক হারালাম। এই ক্ষতি অপূরণীয়।

তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, ‘আজ কিছু বলতে চাই না। শ্রদ্ধা জানাতে চাই। তিনি এভাবে চলে যাবেন আমরা ভাবিনি। তিনি চলে যাওয়ার পর আমরা বুঝলাম তিনি কী ছিলেন। সত্য সুন্দর সাংবাদিকতার উদাহরণ হিসেবে তিনি আমাদের সামনে ছিলেন। আমরা সবাই গর্বিত এমন একজন সাংবাদিক বাংলাদেশে জন্মেছিলেন।’

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, ‘তার সঙ্গে আমার পরিচয় মুক্তিযুদ্ধের আগে। অনেকগুলো গুণাবলীর মধ্যে তিনি একজন সাংবাদিক, তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধা। তার মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশ যেন আরও শক্তিশালী হয় এই প্রত্যাশা।’

বিএফইউজের সভাপতি মোল্লা জালাল বলেন, ‘তিনি এমন একজন সম্পাদক যিনি কখনো সাংবাদিকদের দাবি কখনও ফিরিয়ে দিতেন না।’

ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম, ‘সব সম্পাদকের পক্ষ থেকে সারওয়ার ভাইয়ের চলে যাওয়ায় গভীর শোক প্রকাশ করছি। আমরা যখন সম্পাদক পরিষদ গঠন করেছি, তার উদ্যোগ তিনি নিয়েছিলেন। আমরা জোর করে তাকে সভাপতির পদটি দিয়েছিলাম। কারণ আমরা জানতাম তার সুযোগ্য নেতৃত্বেই এই সংগঠনটি দাঁড় করানো সম্ভব।

গোলাম সারোয়ার বড় ছেলে গোলাম শাহরিয়ার রঞ্জু বলেন, ‘আমার বাবা বেঁচে থাকবেন, বেঁচে আছেন। আপনারা সবাই আমার বাবার ভুলত্রুটি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।’

প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুল রহমান বলেন, ‘আমরা জানি সারওয়ার ভাই কী ছিলেন। আমরা তার রুহের মাগফিরাত কামনা করি।

-বাংলা ট্রিবিউন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here