সিরিজ ভাগাভাগিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে পাকিস্তান-নিউজিল্যান্ডকে

0
138

রোববার দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় স্বাগতিকরা। শুরুটাও দারুণ ছিল পাকিস্তানি দুই ওপেনারের। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত ডানহাতি ওপেনার মোহাম্মদ হাফিজ হিট উইকেট হয়ে ফিরে যান মাত্র ১৯ রান করে। ৬৪ রানে প্রথম উইকেট হারায় তারা।

তিনে নামা বাবর আজমের সাথে বেশিক্ষণ থাকা হয়নি আরেক ওপেনার ফখর জামানের। ৬৫ রান করে গ্র্যান্ডহোমের বলে ম্যাট হেনরিকে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছিলেন তিনি। এরপর দলকে ভাল অবস্থানে পৌঁছে দেন দুই মিডেল অর্ডার ব্যাটসম্যান হারিস সোহেল এবং বাবর আজম। দুইজনে ১০৪ রানের জুটি গড়েছিলেন।

৬০ রান করে সাজঘরে ফিরে গিয়েছিলেন সোহেল। কিন্তু আরেক প্রান্ত আগলে রেখেছিলেন বাবর। খেলেছিলেন ৯২ রানের অসাধারণ ইনিংস। আউট হয়েছিলেন ৪৯তম ওভারে। কিন্তু শেষের দিকে এসে দ্রুতই কয়েকটি উইকেট হারায় টাইগাররা।
শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভারে আট উইকেটে ২৭৯ রান সংগ্রহ করেছে স্বাগতিকরা। লকি ফারগুসন একাই নিয়েছেন পাঁচটি উইকেট।

২৮০ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমেই বিপাকে পরে সফরকারীরা। দলীয় মাত্র তিন রানে ওপেনার কলিন মুনরোকে হারায় তাঁরা। শূন্য রানে এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যানকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান পাকিস্তানি পেসার শাহিন শাহ্ আফ্রিদি।

এরপর ব্যাটিং চালিয়ে যান ওয়ার্কার এবং নিকলস। কিন্তু বেশিক্ষণ খেলতে পারেননি তাঁরা। শুরু হয় বৃষ্টি, ভেসে যায় মাঠ। শেষ পর্যন্ত আর ম্যাচটি মাঠে গড়ায়নি। ৬.৫ ওভারে এক উইকেট হারিয়ে ৩৫ রানে থেমে যায় কিউইদের ব্যাটিং।

বাকি দুটি ম্যাচে একটি করে জয়ের মুখ দেখেছিল দুই দল।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
টসঃ পাকিস্তান
পাকিস্তান: ২৭৯/৮ (৫০ ওভার)
(বাবর ৯২, ফখর ৬৫, হারিস ৬০; ফারগুসন ৫/৪৫)
নিউজিল্যান্ড: ৩৫/১ (৬.৫ ওভার)
(ওয়ার্কার ১৮*, নিকলস ১৫*; শাহিন শাহ্ ১/১৮)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here