বাজারে শীতের সবজির দাম কিছুটা কমেছে

0
15

রোববার সকালে রাজধানীর শুক্রবাদ কারওয়ান বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিদিনের মতো এদিনও সবজি, মাছ, ফলের সরবরাহ ছিল স্বাভাবিক। তবে আগামীকাল পণ্যের মূল্য কিছুটা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

কারওয়ান বাজারের সবজি ব্যবসায়ী মো. আলাউদ্দিন বলেন, রাতে বিভিন্ন জেলাসহ ঢাকার পাশেই নরসিংদী সাভারসহ দেশের প্রত্যান্তঞ্চল থেকে প্রতিদিনই সবজি আসছে। এছাড়া বাজারও এখনো স্থিতিশীল। নতুন করে কোনো সবজির দাম বাড়েনি। এদিকে সবজির বাজার ঘুরে দেখা গেছে, মোটামুটি স্বস্তি রয়েছে সবজির বাজারে। রাজধানীর কারওয়ান বাজার (খুচরা বাজার) ঘুরে মিলেছে এমন চিত্রই।

বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রতিকেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৭০ টাকায়, গাজর ৫০ থেকে ৬০ টাকা, পটোল ২৫ থেকে ৩৫ টাকা, ঝিঙা-ধুন্দল ৩০ থেকে ৪০ টাকা, করলা ৪০ থেকে ৫০ টাকা, কাকরোল ৪০ থেকে ৪৫ টাকা, বেগুন ৩০ থেকে ৪৫ টাকা, ঢ্যাঁড়স ২৫ থেকে ৩৫ টাকা, পেঁপে ১৫ থেকে ২০ টাকা, শসা (প্রকারভেদে) ৩০ থেকে ৪০ টাকা, কচুর ছড়া ৪০ থেকে ৫০ টাকা, কচুর লতি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, কাঁচামরিচ প্রতিকেজি ৫০ থেকে ৬০ টাকাতে বিক্রি হচ্ছে।

বাঁধাকপি ২০ থেকে ২৫ টাকা, ফুলকপি ১৫ থেকে ৪০ টাকা, লাউ ৩০ থেকে ৪০ টাকা, জালিকুমড়া ২০ থেকে ৩০ টাকা, মিষ্টিকুমড়া ৩০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে। সবজির সঙ্গে কমেছে শাকের দামও। বাজারে প্রতি আঁটি লালশাক ৫ থেকে ১০ টাকা, মুলাশাক ৮ থেকে ১০ টাকা, পালংশাক ১৫ থেকে ২০ টাকা, লাউশাক ২৫ থেকে ৩০ টাকা, কচুশাক প্রতি আঁটি ৫ থেকে ৭ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

তবে ব্যবসায়ীরা বলেন, কাঁচাবাজারের দাম সবসময় এক থাকে না। বাজারে আমদানি বেশি হলে দাম কমে, আবার আমদানি না থাকলে দাম বেড়ে যায়। এখন শীতের প্রায় সব সবজি বাজারে আসতে শুরু করেছে, তাই দাম কিছুটা কম। তবে সংকট দেখা দিলে মূল্য বেড়ে যাবে দ্রুতই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here