বাবার পাশে থেকে ‘মা’ স্বাধীনতা সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন: প্রধানমন্ত্রী

0
166

মাকসুদা আলমঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ বাস্তবায়নে সবসময় তার সাথে থেকে সহযোগিতা করেছেন আমার মা বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। বাবার প্রতিটি সিদ্ধান্তে মা পাশে ছিলেন। তিনি বাবার পাশে থেকে দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন।

বুধবার (৮ আগস্ট) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৮৮তম জন্মদিন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমার বাবার যে রাজনীতি, বাংলার মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা, দেশের মানুষের স্বাধীনতা অর্জন করা এর পেছনে আমার মায়ের বিশাল অবদান রয়েছে। আমার মা গৃহিণী ছিলেন, তিনি কখনো সামনে আসেননি। পেছনে থেকেই ‘মা’ বাবাকে সাহায্য করতেন। একজন মন্ত্রীর বৌ হিসেবে আরাম আয়েশের কথা তিনি কখনো চিন্তাও করতেন না। সবসময় বাবার সাথে থেকে প্রেরণা দিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, ১৯৭১ সালে যখন টুঙ্গিপাড়ার বাড়ি পুড়িয়ে দেয়া হয় তখন সকল কিছু লুট করা হয়। বাবা জেলে থাকা কালে যে কষ্টটা হতো সেটা হলো কেউ আমাদের বাড়ি ভাড়াও দিতে চাইতো না। মাকে দেখতাম দিনের পর দিন কষ্ট করে যাচ্ছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমার মা খুব জ্ঞানপিপাসু ছিলেন। তার খুব বই পড়ার অভ্যাস ছিল। আব্বার জন্য বই কিনতেন। লেখাপড়ার তেমন সুযোগ না পেলেও চিন্তা ভাবনায় তিনি খুব উচ্চমানের ছিলেন।

তিনি বলেন, আগরতলা মামলা শুরু হওয়ার আগ পর্যন্ত আমরা জানতাম না আমার বাবা কোথায় আছেন, কেমন আছেন, বেচে আছেন কিনা। কোনো খবরই আমরা পাইনি। যখন মামলাটা শুরু হলো তখন আমরা জানতে পারলাম যে তিনি বেঁচে আছেন।

১৯৩০ সালের এই দিনে গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের কালরাতে জাতির পিতা হত্যাকারীদের নিষ্ঠুর, বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞের শিকার হয়ে তিনিও শাহাদাত বরণ করেন। মাত্র ৩ বছর বয়সে পিতা ও ৫ বছর বয়সে মাতাকে হারান বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা। তার ডাক নাম ছিল ‘রেণু’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here