বাবার লাশ বাড়িতে, পিইসি পরীক্ষায় অংশ নিল মেয়ে

0
190

বাবার লাশ বাড়িতে রেখে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় (পিইসি) অংশ নিয়েছে তৈশী বসু নামের এক শিক্ষার্থী। রোববার (১৮ নভেম্বর) সে ১২৬ নং পশ্চিম গোপালগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পিইসি পরীক্ষা নিয়েছে। ৭ দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে না ফেরার দেশে চলে গেছেন সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত তৈশী বসুর বাবা অনিমেষ বসু (৪৫)।

শনিবার (১৬ নভেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ঢাকার আয়শা মেমোরিয়াল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তিনি দুই কন্যা সন্তানের জনক। এক মেয়ে পিএসসি আজকে পিইসি পরীক্ষা নিয়েছে। অন্য মেয়ে এবারের এএসসি পরীক্ষার্থী। নিহত অনিমেষ বসু গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলা হাসপাতালের রেকর্ড কিপার ছিলেন।

নিহতের ছোট ভাই বিপুল বসু জানিয়েছেন, গত ১১ নভেম্বর গোপালগঞ্জ শহরের বাসা থেকে একটি থ্রি-হুইলারে (মাহেন্দ্র) করে টুঙ্গিপাড়া হাসপাতালে যাচ্ছিলেন অনিমেষ বসু। মাহেন্দ্রটি টুঙ্গিপাড়ার গিমাডাঙ্গা নতুন বাজার এলাকায় অপর একটি ব্যাটারি চালিত ইজি বাইককে ওভারটেক করতে গেলে টুঙ্গিপাড়া থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী গোল্ডেল লাইন পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে।

এতে মাহেন্দ্র যাত্রী লিমন মুন্সী ও অনিমেষ বসুসহ চার যাত্রী আহত হন। তাদের মধ্যে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা হাসপাতালে লিমন মুন্সি মারা যান। নিহত লিমন মুন্সী গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার জালালাবাদ ইউনিয়নের মাটলা গ্রামের মোমরেজ মুন্সীর ছেলে। তিনি রূপালী ব্যাংক টুঙ্গিপাড়া শাখায় এমএলএসএস পদে কর্মরত ছিলেন।

গুরুতর আহত অবস্থায় অনিমেষ বসুকে প্রথমে খুলনা ও পরে হেলিকপ্টার করে ঢাকার আয়েশা মেমোরিয়াল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় অনিমেষ বসু মারা যান। অনিমেষ বসু মৃত্যুর সংবাদে শোকের তার বাড়িতে ছায়া নেমে এসেছে।  সময়

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here