বিদেশি কর্মী নিতে নতুন নিয়ম করছে মালয়েশিয়া

0
193

গণমাধ্যম ডেস্ক: বাংলাদেশ থেকে দশটি এজেন্সির মাধ্যমে জনশক্তি নেওয়া বন্ধ করার পর এখন নতুন একটি পদ্ধতি চালু করতে যাচ্ছে মালয়েশিয়া সরকার, যে নিয়ম সব দেশের জন্যই প্রযোজ্য হবে এবং সব লাইসেন্সধারী এজেন্টই শ্রমিক নেওয়ার সুযোগ পাবে।

মালয়েশিয়ার ইংরেজি দৈনিক স্টার অনলাইনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ গত মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে সরকারের এই সিদ্ধান্তের কথা তুলে ধরেন।

মাহাথির বলেন, অবৈধভাবে অবস্থানরত শ্রমিকদের নিয়ে তার দেশকে অনেক জটিলতা পোহাতে হচ্ছে। এ কারণে যেসব দেশ থেকে মালয়েশিয়া লোক নেয়, সব দেশের ক্ষেত্রেই এক নিয়ম চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ, নেপাল আর অন্যান্য দেশ- সব ক্ষেত্রেই এ নিয়ম প্রযোজ্য হবে।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ মালয়েশিয়া বাংলাদেশের জনশক্তি রপ্তানির গুরুত্বপূর্ণ বাজার। সরকারি হিসাবে পাঁচ লাখের বেশি নিবন্ধিত বাংলাদেশি সেখানে বিভিন্ন পেশায় কাজ করেন; যদিও বাস্তবে এই সংখ্যা আরও বেশি বলে সংশ্লিষ্টদের ধারণা।
মালয়েশিয়া সরকার তাদের পাঁচটি খাতে সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ের সমন্বয়ে ‘জিটুজি প্লাস’ পদ্ধতিতে বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিতে রাজি হওয়ার পর ২০১৬ সালে ঢাকায় দুই দেশের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। পাঁচ বছর মেয়াদী এই চুক্তির আওতায় লোক পাঠানোর অনুমতি দেওয়া হয় ওই দশটি জনশক্তি রপ্তানিকারক এজেন্সিকে।

কিন্তু প্রবাসী এক বাংলাদেশি ব্যবসায়ীর নেতৃত্বে মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগসাজশে একটি চক্র ওই দশ এজেন্সিকে নিয়ে সিন্ডিকেট করে শ্রমিকদের কাছ থেকে দুই বছরে অন্তত ২০০ কোটি রিঙ্গিত হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ ওঠার পর গত জুনে ওই ব্যবস্থা স্থগিত করে দেশটির সরকার।

সেই প্রসঙ্গ টেনে মাহাথির বলেন, দশ এজেন্টের ওই ব্যবস্থায় একটি মনোপলি তৈরি হয়েছিল। আর সেটা ভাঙতেই মালয়েশিয়া সরকার সব নিবন্ধিত এজেন্টের জন্য সুযোগ উন্মুক্ত করে দেওয়ার একটি পথ খুঁজছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here