বিদ্বেষ ছড়ানোতে পিছিয়ে পড়ছে ভারত

0
156

দার আকাশ পত্রিকার সম্পাদক, নবচেতনার আহ্বায়ক ও কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের দূরশিক্ষা বিভাগের সহ অধিকর্তা ফারুক আহমেদ বলেছেন, ক্ষমতাসীন বিজেপি’র বিদ্বেষ ছড়ানোর কারণে ভারত গভীর সঙ্কটের মধ্য দিয়ে চলেছে। এতে ভারতবাসী দিন দিন অন্য দেশের থেকে পিছিয়ে পড়ছে । গত বৃহস্পতিবার ( ৬ সেপ্টেম্বর) পশ্চিমবঙ্গের ধর্মতলায় এক সমাবেশ ও সংবাদ মাধ্যমকে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আসামের ধাঁচে পশ্চিমবঙ্গেও জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) কার্যকর করে অনুপ্রবেশকারীদের বিতাড়নের চেষ্টা করছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। এক্ষেত্রে হিন্দু শরণার্থীদের বিতাড়নের কোনও কখা তোলা হয়নি। বরং তাদের নাগরিকত্ব দেয়ার পক্ষে সাফাই গাওয়া হয়।

তিনি আরও বলেন, সম্প্রতি সংগঠনটির রাজ্য কমিটির পক্ষ থেকে এনআরসি ছাড়াও ‘ঘর ওয়াপসি’, ‘লাভ জিহাদ’ ‘ল্যান্ড জিহাদ’ ইত্যাদি বিতর্কিত ইস্যুতে মাঠে নামার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। ‘ঘর ওয়াপসি’ (বিভিন্ন কারণে যারা হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে অন্য ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন, তাদেরকে পুনরায় হিন্দু ধর্মে ফিরিয়ে আনা) বা ‘ঘরে ফেরানো কর্মসূচি’ রূপায়ণের জন্য দুর্গাবাহিনী ও বজরং দলের সদস্যদের নিয়ে একটি মঞ্চ গঠন করা হবে। এর পাশাপাশি কাজে লাগানো হবে মঠ-মন্দির ও ধর্মীয় সংগঠনগুলোকে। তাদের অভিযোগ, এখানে হিন্দুদের দেবত্তর সম্পত্তি ও হিন্দুদের সম্পত্তি জোর করে দখল করে নেয়া হচ্ছে এবং কম দামে কিনে নেয়ার মধ্য দিয়ে ‘ল্যান্ড জিহাদ’ চলছে।

ফারুক আহমেদ বলেন, তারা(বিজেপি) কথিত ‘লাভ জিহাদ’ (হিন্দু নারীদের ভালবাসার ছলে ধর্মান্তকরণ) রুখে দিতে মানুষজনকে বোঝাতে বাড়ি বাড়ি প্রচার চালাবে। তবে এসব করে বিজেপি ভারতের ও বাংলার সম্প্রীতি নষ্ট করতে পারবেনা। বিভাজনের রাজনীতি করে সম্প্রীতির বাংলায় কখনও সফল হবে না বিজেপি। বাংলার মানুষ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অটুট রাখতে বদ্ধপরিকর। দেশের বৈধ নাগরিকদের অন্যায়ভাবে বিদেশি বানিয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্র রুখে দিতে দেশবাসী সোচ্চার হচ্ছেন, এটাই আশার আলো। আসমে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি থেকে লাখ লাখ বৈধ নাগরিকদের নাম বাদ দেয়ার ষড়যন্ত্র কোন উদ্দেশ্যে তা আমরা বুঝতে পারছি। এভাবে আসম থেকে বাঙালি মুসলিম ও হিন্দুদের খেদিয়ে দিয়ে ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারবে না তারা।
তিনি বলেন, ‘আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস ভারতকে ওরা ‘হিন্দু রাষ্ট্র’ বানাতে পারবে না। ভারতের সংবিধান ধর্মনিরপেক্ষ। সংবিধানকে কলঙ্কিত করার উদ্যোগ সুস্থ নাগরিকরা মেনে নেবেন না। মিশ্র সংস্কৃতিই আমাদের অর্জিত বৈভব। মিশ্র সংস্কৃতির দেশ ভারত। ভারতকে যারা অপবিত্র করছে তারা মানুষ নয়, মানুষ নামের অন্য কিছু। ভারত আমাদের মাতৃভূমি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here