ভুল বোঝাবুঝি নেই, এমপিদের শপথ সঠিক, রমজানের পর অনশনসহ আন্দোলন কর্মসূচি

0
243

সোমবার বিকেলে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে বৈঠক করেছেন ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতারা। বৈঠকে সংরক্ষিত আসনে ঐক্যমতের ভিত্তিতে প্রার্থী দেবে ২০ দলীয় জোট, খালেদা জিয়ার মুক্তি ও কৃষকের পণ্যের ন্যাযমূল্যের দাবিতে আগামী সপ্তাহে মানববন্ধন, রমজানের পর সারা দেশে অনশনসহ আন্দোলন কর্মসূচির সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে বৈঠক সূত্রে জানা গেছে।

কৌশলগত কারণে বিএনপি এমপিদের সংসদে যোগ দেয়া সিদ্ধান্তে দ্বিমত নেই। প্রতিমাসে জোটের দুটি মিটিং, আন্দালিভ পার্থ আবারো ফিরে আসবেন প্রত্যাশা, ২০ দলীয় জোটকে বিএনপি মূল্যায়ন করে। জোটের মধ্যে কোনো ভুল বোঝাবুঝি নেই। বৈঠক শেষে বাংলাদেশ ন্যাপ ভাসানীর চেয়ারম্যান এম এন শাওন সিদ্দিকী একথা বলেন। তিনি বলেন, ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে জোটের শরীকদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি নেই। ঐক্যফ্রন্টের বিষয়টি বিএনপির এটা তারাই বুঝবে।

২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ২০ দল ভাঙবে না বরং দেশের গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে জোটের পরিসর আরও বৃদ্ধি পাবে। সোমবার (১৩ মে) বিকেলে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতাদের বৈঠকের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

বিজেপি চেয়ারম্যান আন্দালিভ রহমান পার্থ‘র জোট ত্যাগের বিষয়ে নজরুল ইসলাম খান বলেন, তার মান অভিমান থাকতেই পারে। তবে আশা করি ভুল ত্রুটি সংশোধন হয়ে সেটা ঠিক হয়ে যাবে। পার্থ ২০ দলে ফিরে আসবে।

লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের জোট ছাড়ার হুমকীর বিষয়ে নজরুল ইসলাম বলেন, ডা. ইরান আজকের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। তিনি আমাদেরকে বলেছেন এ ধরণের কথা তিনি বলেননি। এ বিষয়ে সাংবাদিকদের সংবাদ প্রকাশের আগে সতর্ক হয়ে বিএনপি নেতাদের বক্তব্য নেওয়ার আহবান জানান তিনি।

তিনি বলেন, জোটের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে এখন থেকে প্রতিমাসে ২০ দলীয় জোটের একটা বৈঠক হবে। এছাড়া জোট নেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি, কৃষকদের ফসলের ন্যায্যমূল্য না পাওয়ার প্রতিবাদে জোটগতভাবে কর্মসূচি দেওয়া হবে।

এর আগে বিকাল সোয়া চারটা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত জোটের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, জামায়াতে ইসলামির কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য মাওলানা আবদুল হালিম, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল হায়দার, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অবসরপ্রাপ্ত) সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, এলডিপির মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ, ন্যাপ ভাসানীর চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম, এনডিপির সভাপতি ক্বারী আবু তাহের, বাংলাদেশ ন্যাপ সভাপতি শাওন সাদেকী, পিপলস লীগের মহাসচিব সৈয়দ মাহবুব হোসেন, জাতীয় দলের সভাপতি এহসানুল হুদা, জাগপা মহাসচিব খন্দকার লুৎফর রহমান, ইসলামি ঐক্য জোটের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা শওকত আমিন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মহিউদ্দিন ইকরাম প্রমুখ।

বৈঠক শেষে শীর্ষ নেতারা এক সঙ্গে ইফতার করেন। সম্পাদনা : শাহানুজ্জামান টিটু

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here