মক্কায় হজ এজেন্সির অনিয়ম ও দুর্নীতি হাজীদের পিছু ছাড়ছে না

0
255

বিত্র হজ পালন শেষে হাজীরা এখন দেশে ফিরছেন। সরকার হাজীদের সুষ্ঠভাবে হজ পালনের জন্য প্রতিবছর সতর্কতা অবলম্বনসহ নানা পদক্ষেপ নিলেও অতীতের বছরগুলোর মতো কিছু হজ এজেন্সির অনিয়ম ও দুর্নীতি এখনো হাজীদের পিছু ছাড়ছে না। হাজীদের অভিযোগ, হজের বুকিং নেয়ার সময় নানা চোখ ধাঁধানো ছবি আর লোভনীয় কিছু কথা বলে আকৃষ্ট করা হয়। কিন্তু সৌদি আরবে এসে পৌঁছানোর পর প্রতিশ্রুতির অনেক কিছুরই মিল খুঁজে পাওয়া যায় না।

এ বছর বাংলাদেশ থেকে বেসরকারি ৫২৮টি এজেন্সি এবং সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনে ৩৭১টি ফ্লাইটে সৌদিআরব আসে ১লক্ষ ২৭হাজার ২শ ৯৮ জন বাংলাদেশি হাজী। এর মধ্যে সেখানে ১১৩ জন হাজী ইন্তেকাল করেন। ইতোমধ্যে অনেকে হজ শেষ করে দেশে পৌঁছেছেন। আবার অনেকে দেশে ফেরার অপেক্ষায়। দেশে ফেরার আগে তারা এজেন্সির কর্মকা-ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। হাজীদের অভিযোগ,ভালো খাবার, ভালো হোটেল রুম, হজ পালনে দক্ষ গাইড দেয়ার কথা থাকলেও বাস্তবে তারা কিছুই পাননি । গাইডের অভাবে, হজের অনেক আহকাম সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে পারেননি বলেও জানান তারা।

অসাধু কিছু এজেন্সি তাদের দুর্নীতি ও অনিয়ম এর ধারাবাহিকতা ঠিকই ধরে রেখেছেন। হাজীদের অনুরোধ, হজ মিশনসহ যারা এই হজ কার্যক্রম পরিচালনা করেন, তারা যেন আরো সতর্ক হন। যাতে করে হাজীরা সুষ্ঠুভাবে হজ করে দেশে ফিরতে পারেন।

হাজীরা বলেন, ‘হজের যে অব্যবস্থাপনা তা বর্ণনা করার মত ভাষা নাই। খাওয়ার বিষয়ে থাকার বিষয়ে বা হজ কাফেলা থেকে সহযোগিতার বিষয়ে যে অসহযোগিতা যে অমনোযোগিতা দেখেছি এটা বর্ণনা করা যায় না।

হাজীদের এজেন্সিগুলোর বিরুদ্ধে করা অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করেছেন মদিনায় কর্মরত মৌসুমি হজ কর্মকর্তা।
মৌসুমি হজ কর্মকর্তা অফিসার এবিএম আমিন উল্লাহ্ নুরী বলেছেন, কিছু অসুবিধা সবসময় থাকে এবছরও ছিলো। অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর অভিযোগ কম পেয়েছি। তবে অনেক অভিযোগ তাৎক্ষণিক দুই পক্ষকে নিয়ে মিটিয়ে ফেলা হয়েছে। যাদেরকে পাওয়া যায়নি তাদের বিরুদ্ধে ঢাকায় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

এরকম অভিযোগ উঠে এসেছে অন্তত ৫৫টি এজেন্সির বিরুদ্ধে। মদিনার মৌসুমি হজ অফিসার বলেন, কিছু অসুবিধা সহ সময় থাকে এই বছরও ছিল। অন্যান্য বছরের চেয়ে এই বছরে অভিযোগ কম পেয়েছি। সূত্র : সময় টেলিভিশন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here