মালয়েশিয়ার শ্রম বাজার নিয়ে নতুন সমঝোতা

0
141

মালয়েশিয়ায় জি টু জি প্লাস পদ্ধতিতেই সব বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে লোক পাঠানো যাবে বলে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। গত ২৫ সেপ্টেম্বর দুই দেশের মন্ত্রণালয় পর্যায়ে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলামের নেতৃত্বে মালয়েশিয়া সফররত বাংলাদেশি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী এম কুলাসেগেরানসহ সরকারি কর্মকর্তাদের মন্ত্রণালয় পর্যায়ের জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের দু’দফা বৈঠকের পর এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী নিজের টুইটারে টুইট করে বলেছেন, ‘বাংলাদেশের প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রীর সঙ্গে ফলপ্রসু আলোচনা হয়েছে। আমরা বিদেশি শ্রমিকদের বিষয়ে একটি সমঝোতা করছি।’

বৈঠক শেষে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রীর একান্ত সচিব (যুগ্মসচিব) আবুল হাছানাত হুমায়ুন কবীর জানান,  সভায় বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ও যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তার মধ্যে জি টু জি প্লাস পদ্ধতিতে বৈধ সব রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে বাংলাদেশি কর্মীদের মালয়েশিয়ায় পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এছাড়াও কলিং ভিসায় কর্মী নিয়োগের বিষয়েও ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় এবং এ প্রক্রিয়ায় মালয়েশিয়া গমনেচ্ছু অপেক্ষমাণ কর্মীদের পথ উন্মুক্ত থাকবে। এছাড়াও মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত অনিয়মিত কর্মীদের নিয়মিতকরণের বিষয়েও মালয়েশিয়া সরকার ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছে।

মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী গণমাধ্যমে দেওয়া এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন,  মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত অবৈধ বাংলাদেশিদের দেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়টি সুরাহা এবং এই বিষয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে তারা যৌথভাবে কাজ করতে চায়।

মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী কুলাসেগেরান বলেন, ‘আমি বাংলাদেশের প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলামকে জানিয়েছি যে, মালয়েশিয়ায় বিপুল সংখ্যক অবৈধ বাংলাদেশির ব্যাপারে সুরাহা করা প্রয়োজন। এদের বেশিরভাগই নির্ধারিত সময়ের বেশি সময় ধরে মালয়েশিয়ায় অবস্থান করছে।’

– বাংলাট্রিবিউন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here