মাশরাফি কি করেছে আমরা সবাই তা জানি : হাবিবুল বাশার

0
37

বয়স একেবারে কম হয়নি, ৩৬ বসন্ত পেরিয়েছে। এর মধ্যে করোনার ধাক্কা আর হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি সামলেও বঙ্গবন্ধু টি -টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে মাঠে নেমেছিলেন। শুধু খেলেনইনি। এক ম্যাচে ৫ উইকেট শিকার করে রীতিমত সবাইকে অবাকও করে দিয়েছিলেন।

অতি বড় সমালোচকের মুখও বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। সবার চোখ রীতিমত ছানাবড়া হয়েছিল। মনে হচ্ছিল, মাশরাফির ক্যারিয়ারের প্রদীপ নেভেনি। জ্বলছে আগের মতই।

গতি কমিয়ে ১২০-১২৫ কিলোমিটারের আশপাশে বোলিং করেছেন। অযথা বাড়তি কিছু না করে বুদ্ধি খাটিয়ে ব্যাটসম্যানের মতি গতি বুঝে ভালো লাইন ও লেন্থে বোলিং করে সমীহ আদায় করেছেন।

তখন মনে হচ্ছিল, আরও কিছুদিন বল হাতে কারিশমা দেখানোর সামর্থ্য আছে তার। তাই হয়তো ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ঠিকই দলে থাকবেন নড়াইল এক্সপ্রেস।

কিন্তু সব অনুমান ভুল। ২৪ জনের প্রাথমিক দলেই নেই মাশরাফি। নির্বাচকরা ব্যাখ্যা দিয়েছেন, বিসিবির ভবিষ্যৎ ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনায় নেই, তাই দলে নেয়া যায়নি মাশরাফিকে।

আজ (সোমবার) দুপুরে দল ঘোষণার পর থেকেই ঘুরে-ফিরে একটি প্রশ্ন মিডিয়া পাড়ায়-‘মাশরাফি কেন নেই ?’ দুপুর গড়িয়ে বিকেল নামার আগে শেরে বাংলায় উপস্থিত সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে গিয়ে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু অনেক লম্বা চওড়া ব্যাখ্যা দিয়েছেন। যার সারমর্ম হলো, আসলে বিসিবির ভবিষ্যত ও দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনায় নেই মাশরাফি। তাই তাকে বিবেচনায় আনা হয়নি।

এদিকে মাশরাফি দলে না থাকা নিয়ে কথা বলেছেন অপর নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমনও। তিনিও বোঝাতে চাইলেন, ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করেই আসলে নেয়া হয়নি তাকে। তবে জাতীয় দলের ও মাশরাফির সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমন অকপটে স্বীকার করেছেন, মাশরাফি এখনও শেষ হয়ে যাননি। তার বলের ধার এখনও আছে। তাইতো বাশারের মুখে এমন সংলাপ, ‘মাশরাফি স্টিল গুড।’

মাশরাফির প্রতি সম্মান জানিয়ে হাবিবুল বাশার সুমন বলেন, ‘দেখেন, মাশরাফি ২০ বছর ধরে আমাদের সার্ভিস দিয়ে আসছে। মাশরাফি কি করেছে, আমরা সবাই তা জানি।’

তাই বাশার মনে করেন, মাশরাফির সাথে কারো তুলনাই চলে না। জাতীয় দলের অন্যতম এই নির্বাচকের ভাষায়, ‘ওর (মাশরাফির) সাথে কারো তুলনা আমি করব না। ও সবসময় আমাদের জন্য আইকনিক প্লেয়ার ছিল। যেটা বললাম, বছরের পর বছর সে দেশকে সার্ভিস দিয়ে এসেছে।’

তাহলে তাকে বাদ দেয়া কেন? জানতে চাইলে হাবিবুল বাশার ব্যাখ্যা করেন, মাশরাফি এখনো ভালো অবস্থায় থাকলেও তার পক্ষে এক বছর খেলা চালিয়ে যাওয়া কঠিন হবে। তার চেয়ে নতুন কাউকে সুযোগ দিয়ে ভবিষ্যতের জন্য গড়ে তোলাই উত্তম ও যুক্তিযুক্ত ।

তাই বাশারের মুখে এমন সংলাপ, ‘দেখুন, এখনও আমি মনে করি হি ইজ স্টিল গুড (সে এখনও যথেষ্ট ভালো)। কিন্তু এক বছর পর এটা কঠিন হয়ে যাবে, এটাই বাস্তবতা। যেহেতু আমাদের প্রধান নির্বাচক বলেছেন আমাদের ভবিষ্যতের দিকে তাকাতে হবে। সেক্ষেত্রে আমরা যদি সামনের দিকে তাকাই নতুন কাউকে সুযোগ দেই। আমরা মনে হয় না, ওর সাথে এখনই কাউকে তুলনা করাটা ঠিক হবে। এটা এক্সপেরিমেন্টাল না, সামনের জন্য ওদেরকে তৈরি করে দেয়া।’ সূত্র: জাগোনিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here