রাশেদা রওনক খান: ধর্ষণবিরোধী আন্দোলন : আমাদের মূল উদ্দেশ্য যেন ছিনতাই না হয়ে যায়

0
24

ধর্ষণমুক্ত সমাজ গড়ে তুলতে প্রতিবাদ, প্রতিরোধ হচ্ছে অনেকে যার যার নিজস্ব পন্থায় সেই প্রতিবাদ প্রতিরোধ গড়ে তুলছেন, তা সে ব্যক্তিগত বা সামষ্টিকভাবে হোক, সেটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ। আমাদের মাঝে কেউ কেউ নানা ধরনের ভিডিও বানাচ্ছেন, বিভিন্ন মতামত ব্যক্ত করছেন। কিংবা ভিডিও ক্লিপ ছড়িয়ে দিচ্ছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। সবই একটি পরিবর্তন আনার জন্য জরুরি কাজ। কিন্তু এসব জরুরি কাজ করার সময় আমাদের পরিষ্কার থাকতে হবে, আমরা কী করতে চাই, আমাদের লক্ষ্য কী? এমন কিছু পরিবেশিত হচ্ছে কিনা যা আসলে ভুল বার্তা দিচ্ছে সমাজকে। আমরা যখন কোনো বার্তা দেই, আমাদের দায়িত্বও কিন্তু খুব বেড়ে যায়। এই ধরনের বার্তা হয়তো ‘স্যাটায়ার’ অর্থে বানানো। কিন্তু আমাদের আপামর জনসাধারণের একটা অংশ ‘স্যাটায়ার’ বুঝবে না, বুঝবে ধর্ষণ করা যেতে পারে। কিন্তু ধর্ষণের পর মেরে না ফেললেই হবে।

সবাইকেই সব কিছু নিয়ে কথা বলতেই হবে, এমন কিন্তু নয়। আমরা কেবল চাই, সবাই নারীকে সম্মান করুক, সমাজে নারীর প্রতি যৌন সহিংসতাসহ সকল প্রকার নির্যাতন বন্ধ হোক, ধর্ষণের ক্ষেত্রে বিচার ব্যবস্থায় পরিবর্তন আসুক। কেবল এইটুকু চাওয়াকে ভুল পথে টেনে নেবেন না, কেউ আবেগের বশে কিংবা কোনো বাণিজ্যিক এজেন্ডাকে সামনে রেখে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কিংবা রাজপথে যেখানেই আন্দোলন প্রতিরোধ লড়াই চলে, তা ছিনতাই করার জন্য বিভিন্ন এজেন্ডা নিয়ে আশেপাশে মানুষ ঘুর ঘুর করতে থাকে। তাই আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে, আমাদের মূল উদ্দেশ্য যেন ছিনতাই না হয়ে যায়, আর তা হলো ধর্ষণমুক্ত সমাজ, ধর্ষকের কঠিন শাস্তির ব্যবস্থা নিশ্চিত করা এবং তা হচ্ছে মৃত্যুদণ্ড। ফেসবুক থেকে: রাশেদা রওনক খান

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here