রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে কোর ক্যাচার স্থাপিত

0
277

গণমাধ্যম ডেস্ক: পরিবেশ ও জননিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রথম ইউনিটে বসানো হয়েছে ব্যয়বহুল মোল্টেন কোর ক্যাচার। শনিবার (১৮ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১১টায় রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের রি-অ্যাক্টর পাদদেশে প্রথম ইউনিটের মোল্টেন কোর ক্যাচার স্থাপন করেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, রূপপুর এলাকার জনগণের তথা বাংলাদেশের মানুষের যাতে কোনো ক্ষতি না হয় সেজন্য পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মোল্টেন কোর ক্যাচার যন্ত্র বসানো হলো। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা কথা দিয়েছিলেন। তিনি কোনো কথা দিলে সে কথা রাখেন। তিনি বলেন, বাঙালি যা চায়, তা করতে পারে। দেশের জনগণকে ভালোবাসার সঙ্গে কীভাবে নিরাপত্তা দিতে হয় তা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বাবার কাছ থেকে শিখেছেন।

ইয়াফেস ওসমান আরও বলেন, প্রায় ১০ বছর ধরে এ প্রকল্পের কাজ চলছে। সবার সহযোগিতায় আজ বিশ্ব দরবারে আমরা মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছি। বর্তমান সরকারের অনেক প্রকল্প রয়েছে, এটিই একমাত্র প্রকল্প যেটা পরিদর্শনে পরপর তিনবার এসেছেন প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধুকন্যা কথা দিয়েছিলেন, রূপপুরের কোনো ক্ষতি হয়, বাংলাদেশের ক্ষতি হয়- এমন কিছু তিনি করবেন না। তিনি সে কথা রেখেছেন। শুধুমাত্র এ এলাকার জনগণ ও বাংলাদেশের পরিবেশ রক্ষায় মোল্টেন কোর ক্যাচার স্থাপন করা হলো। পৃথিবীতে দ্বিতীয় কোর ক্যাচার এটি, যা অনেক ব্যয়বহুল।

অনুষ্ঠান আরও বক্তব্য রাখেন-বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব আনোয়ার হোসেন, রাশিয়ান ফেডারেশনের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মিস্টার খাজিন, বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন এর চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক, রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের অন্তর্র্বতীকালীন নিরাপত্তা বাহিনীর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সৈয়দ মো. আস সাজিদ প্রমুখ।

বিদ্যুৎ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড. শওকত আকবর বলেন, রূপপুর বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রথম ইউনিটের কোর ক্যাচার স্থাপন হওয়ায় ১০ লাখ বছর পরও যদি কখনও দুর্ঘটনা ঘটে, তাহলে এ ক্যাচারের ভেতর পড়বে, বাইরে যাওয়ার আর কোনো সুযোগ রইলো না। এটি পরিবেশ ও প্রকৃতি, এলাকার জনগণের জন্য শেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা, যা আজ স্থাপন করে বাংলাদেশ আরেক ধাপ এগিয়ে গেলো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here