রোহিঙ্গা নির্যাতন তদন্তে আধা-বিচারিক সংস্থা গড়ে তোলার আহ্বান জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধানের

0
186

রোহিঙ্গাদের উপর হওয়া মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের বিষয় তদন্তে একটি আধা-বিচারিক সংস্থা গড়ে তোলার পরামর্শ দিয়েছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার মিচেল বেচলেট। রোহিঙ্গাদের উপর হওয়া হত্যাকান্ড এবং নির্যাতনের তদন্তে এ ধরণের সংগঠন জরুরী বলে মনে করেন তিনি।

গতমাসে প্রকাশিত জাতিসংঘের একটি স্বাধীন তদন্ত রিপোর্টে বলা হয়, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গারা গণহত্যার শিকার হয়েছে। আর ঘটনার তদন্ত ও বিচারভার আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতকে দেয়ার সুপারিশ করেন তারা। এই তদন্তকারীরা এই গণহত্যার জন্য ৬ জন জেনারেলকে দায়ী করে বলেন, তাদের অবশ্যই বিচারের আওতায় আনতে হবে।

১ সেপ্টেম্বর দ্বায়িত্ব গ্রহণের পর মানবাধিকার কাউন্সিলে দেয়া নিজের প্রথম বক্তব্যে বেচলেট বলেছেন নিশ্চিতভাবে রাখাইন রাজ্যে হামলা এবং হত্যাকান্ড হয়েছে। তিনি আরো মনে করেন এই ধরনের ঘটনা এখনও চলমান। তিনি বলেন, ‘তদন্ত রিপোর্টে আমরা জেনেছি মিয়ানমার সেনাবাহিনী রাখাইনে পাশবিকতার চুড়ান্ত প্রদর্শন করেছে।’ গত সপ্তাহে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের দেয়া রুলিংকেও স্বাগত জানান তিনি। তিনি আরো বলেন, ‘এটি অবশ্যই রোহিঙ্গা জনগনকে অসম্ভব কষ্ট থেকে মুক্তি দেবার জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। একটি স্বতন্ত্র আন্তর্জাতিক পদ্ধতিগত সংস্থা গঠনের জন্য কাউন্সিলের সদস্য দেশগুলোর উদ্যোগকেও স্বাগত জানাই।’ তিনি জানিয়েছেন সিরিয়ায় যুদ্ধাপরাধ তদন্তে গঠিত সংস্থার সমমানের হবে এটি।

২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে মিয়ানমার। এর ফলে প্রায় ৭ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। বাংলাদেশে বর্তমানে ১০ লাখের অধিক রোহিঙ্গা বসবাস করছে। এই অভিযানকে সম্প্রতি গণহত্যা বলে স্বীকৃতি দিয়েছে জাতিসংঘ। তবে মিয়ানমার বরাবর এই দায় অস্বীকার করে আসছে। রয়টার্স

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here