শামসুল ইসলাম : বোরকার ছবি দেখে বাংলাদেশকে আফগানিস্তান ভাবলে ভুল হবে

0
20

শামসুল ইসলাম : আমাদের মতো একটি দেশে জাতীয় ভাবে পরিচিত অত্যন্ত উচ্চমানের স্কলার, ফিলোসফার, থিংকার, পাবলিক ইন্টেলেকচুয়াল মিলে মোট কতজন থাকতে পারে? আমার কাছে মনে হয় ১০০ জনের বেশি হবে না। তারা একাডেমিয়া, থিংক ট্যাংক, মিডিয়ায় বা ইন্ডিপিন্ডেন্ট স্কলার হিসেবে কাজ করেন এবং জাতীয় ইস্যুতে মতামত দিতে পারেন। তাদের মতামত নিয়ে সাধারণ মানুষরা বা সাধারণ মেধার লোকরা তর্ক বিতর্ক করতে পারে।

কিন্ত সমস্যা হচ্ছে আমাদের দেশে স্কলার, থিংকার, ফিলোসফার হয়েছে কয়েক কোটি। বোরকা ইস্যুতে আমি দেখছি বেশিরভাগ উচ্চমানের স্কলাররা এটাকে ব্যক্তি স্বাধীনতা হিসেবে দেখছেন। এটাকে কোনও ইস্যু হিসেবে দেখতে তারা নারাজ। বিবিসি বা ডেইলি স্টারে তাদের সাক্ষাৎকারে এটা স্পষ্ট।

কিন্ত কোনও পড়াশোনা ছাড়া কিছু সাধারণ লোকজন বিভিন্ন ব্যাখ্যা, বিশ্লেষণ কলাম দিয়ে দেশকে আফগানিস্তান বানিয়ে ছাড়ছেন । তাদের কাছে আমার প্রশ্ন আপনাদের পড়াশোনা কতদূর? আপনারা কি বাঙালির নৃতত্ত্ব, সমাজ, রাজনৈতিক কালচার, দর্শন, ইতিহাস ইত্যাদি পড়েছেন? আপনাদের কি মিডিয়ার ইউজ এবং এবিউজ নিয়ে পড়াশোনা আছে?

আপনারা কি রিচার্ড ইটনের তত্ত্ব, বা রাজিয়া আক্তার বানুর এ অঞ্চলের ইসলাম নিয়ে লেখা পড়েছেন? আপনারা কি জানেন কোনও কোনও গবেষণায় এসেছে বাংলাদেশে কোনও সময় ইসলামি বিপ্লব হবে না। আপনারা কি ইসলামি দলগুলোর ভোট প্রাপ্তির ট্রেন্ড জানেন? আপনারা কি জানেন হাফেজ্জী হুজুরকে প্রেসিডেন্ট বানানো নিয়ে মনে হচ্ছিল বিপ্লব হয়ে যাচ্ছে? অথচ তার ভোটপ্রাপ্তি ছিল ৩ পারসেন্ট এর কম।

ঢাকার মেয়েরা কতটুকু স্বাধীনচেতা সে সম্পর্কে কোনো ধারণা আছে আপনাদের? ঢাকায় ১ ঘন্টারও কম সময়ে একটা ডিভোর্স হচ্ছে। আর বেশিভাগ ডিভোর্স দিচ্ছে মেয়েরা। অনেক এলিট ইউনিভার্সিটিতে এখন মেয়েদের জন্য আলাদা স্মোকিং জোন আছে। তারা চাকরি করছে। বাসায় একটা কাজের মহিলা খুজছি কিন্ত পাচ্ছি না। তারা বিভিন্নভাবে আয় করছে।

আপনাদের মনে হচ্ছে পুরুষরা তাদের ধরে জোর করে বোরকা পরিয়ে দিচ্ছে? তারা সেটা বিনা বাক্যব্যয়ে মেনে নিচ্ছে? যে মহিলাকে নিয়ে এতকথা সেতো এথলেট ছিল আগে। তাকে কে জোর করে বোরকা পরিয়েছে? নায়িকা শাবানা তো সিনেমা ছেড়ে এখন বোরকা পরে। তাকে কে জোর করেছে?

বোরকা পরা কয়টা মেয়ের সাথে আপনারা কথা বলেছেন? কত মেয়ে আমি আশেপাশে দেখছি একবার বোরকা পরছে, একবার ছাড়ছে ইত্যাদি। এটা তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার। এতে কি তাদের বাঙালিত্ব চলে গেল? অধ্যাপক মেসবাহ কামালের মতে বাঙালি পুরুষদের পোশাক হচ্ছে মালকোঁচা মেরে লুঙ্গি পরা। কিন্ত আপনারা যে এখন থ্রি কোয়ার্টার প্যান্ট পরে ভূঁড়িটাকে বিকট ভাবে বের করে রাখেন। এতে আপনাদের বাঙালিত্ব যায় না?

দেশ আকন্ঠ দুর্নীতিতে নিমজ্জিত। দেশের ৮৫ ভাগ ইন্টারনেট ব্যবহারকারী পর্ণোগ্রাফিতে আসক্ত। কয়েকদিন আগে এক মসজিদের সামনে এক নায়িকার নাচ নিয়ে তুলকালাম হলো। ফেসবুকে আরেক বিতর্ক চলছে এক নামকরা নির্মাতার বিরুদ্ধে। তিনি নাকি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক মেয়ের খোলামেলা ছবি দেখে তাকে ফেসবুকে কুপ্রস্তাব দিয়েছেন বলে মেয়েটি অভিযোগ করেছে। এখানে ধর্ম অধর্মের পাশাপাশি অবস্থান।

এই আমাদের বাংলাদেশ। অন্য দেশের মতোই। আপনারা এসব দেখেন না। একটা ছবি দিয়ে বাংলাদেশকে পৃথিবীর সামনে আফগানিস্তান বানিয়ে দিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক ফেরদোস আমান ফেসবুকে লিখছেন এগুলোতো বড় প্রজেক্টের অংশ। ফেসবুক আর মিডিয়ায় আলোচনা দেখে মনে হচ্ছে বাংলাদেশ আফগানিস্তান হিসেবে প্রমাণ করার এই প্রজেক্ট আপাতত সাকসেসফুল হয়েছে।

আমি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পড়াশোনার মান নিয়ে সমালোচনা করি। পড়াশোনা ছাড়া একটা জাতির ক্রিটিকাল ফ্যাকাল্টি কিভাবে ডেভেলপ করবে? এরকম সুইপিং কমেন্ট আর কারা করতে পারে?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here