‘শুধু পা টাকে নিজের গাড়ি বানিয়ে চলছি’

0
274

আটচল্লিশ ঘণ্টার পরিবহন ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিনে ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। সড়ক-মহাসড়কে জিম্মি হয়ে আছেন সাধারণ মানুষ। আজও রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে নাজেহাল করা হচ্ছে যাত্রীদের।

সড়কে শ্রমিকদের দৌরাত্ম্য থামছেই না। থেমে আছে গণপরিবহন, কিন্তু কর্মব্যস্ত মানুষের থামবার ফুসরত নেই। তাই বাধ্য হয়ে রিকশা,ভ্যান যে যেভাবে পারছেন চলছেন গন্তব্যে। যাদের মিলছে না কোনো উপায় তারা রওয়ানা হয়েছেন পায়ে হেঁটেই।

পথচারীরা বলেন, ‘আমরা এই আন্দোলন মানছি না। এই আন্দোলন প্রত্যাখ্যান করছি। যাওবা দু একটা বিআরটিসি বাস চলছে তাতেও উঠতে পারছি না। এই ভোগান্তি তো আমাদের। এটা দেখার কেউ নেই।’

বিআরটিসির পরিবহন চলতে দেখা গেলেও তা হাতে-গোনা। তাই বাস দেখা মাত্রই হুড়মুড় করে ওঠার চেষ্টা। এই সংকটে যারা বেছে নিচ্ছেন বিকল্প পরিবহন, শান্তিতে নেই তারাও। ব্যক্তিগত যান কিংবা সিএনজি অটোরিকশা এমনকি মোটরসাইকেল চলতেও বাধা দেয়া হচ্ছে। নগরের বিভিন্ন স্থানে যানবাহনের প্লাগ খুলে নেয়া হচ্ছে, কোথাও আবার ব্যক্তিগত গাড়িতে ময়লা-আবর্জনা মাখিয়ে দেয়া হচ্ছে।

মহাসড়ক বন্ধ করে গাড়ি চলাচলে বাধা দেয়া হচ্ছে। আজও রাজধানীর গাবতলী, মহাখালী, সায়দাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে ছেড়ে যায়নি কোনো দূরপাল্লার বাস। দূরের যাত্রীরা রয়েছেন মহাসংকটে।  যাত্রীরা বলেন, ‘৫০ টাকার ভাড়া ১শ টাকা পাচ্ছে। শুধু পা টাকে নিজের গাড়ি করে চলছি।’

দাবি মেনে নিতে সরকারের প্রতি আবারও আহ্বান জানিয়েছেন শ্রমিক ফেডারেশনের নেতারা। তারা বলেন, ‘সরকারের আহবান আমাদের দাবি মেনে নিক। এবং বাস্তবায়ন করুক।’

সড়ক পরিবহন আইনের কয়েকটি ধারা সংশোধনসহ ৮ দফা দাবিতে আটচল্লিশ ঘণ্টার ধর্মঘটের কর্মসূচি পালন করছে পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন। সময়

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here