শেখ হাসিনার সঙ্গে নেপালের প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক

0
177

কাঠমান্ডুতে নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা অলির সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এদিন নেপালি প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভান্ডারির সঙ্গেও সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। নেপালের সংবাদমাধ্যম হিমালয়ান টাইমসের এক প্রতিবেদন থেকে এসব কথা জানা গেছে।

চতুর্থ বিমসটেক সম্মেলনে যোগ দিতে বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) কাঠমান্ডু পৌঁছান শেখ হাসিনা। নেপালের স্থানীয় সময় দুপুর তিনটায় (বাংলাদেশ সময় সোয়া তিনটা) বিমসটেক সম্মেলন শুরু হওয়ার কথা। সম্মেলনের প্রাক্কালে নেপালি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন শেখ হাসিনা। নেপালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে উদ্ধৃত করে হিমালয়ান টাইমস জানায়, বৈঠকে নেপাল-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

হিমালয়ান টাইমসের আরেকটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ বিমসটেকের সদস্য দেশগুলোর প্রতিনিধিরা নেপালি প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভান্ডারির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষা করেছেন। নেপালি প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবন শীতল নিবাসে বিমসটেক নেতারা এ সাক্ষাৎ পর্বে অংশ নেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়াও সেখানে উপস্থিত ছিলেন-ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ত, শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা, থাই প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চ্যান ওচা ও ভুটানের প্রধান বিচারপতি তাশেরিং ওয়াংচুক। নেপালের প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও শীতল নিবাসের কর্মকর্তারা অতিথিদের স্বাগত জানান। অতিথিদের জন্য মধ্যাহ্নভোজের আয়োজন করেছেন নেপালি প্রেসিডেন্ট।

বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টিসেক্টরাল টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকোনমিক কো-অপারেশনের (বিমসটেক) সাতটি দেশের আঞ্চলিক জোট। এর উদ্দেশ্য হচ্ছে দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক জোরদারের মাধ্যমে একটি সেতুবন্ধ তৈরি করা। এই উপ-আঞ্চলিক সংস্থাটি ১৯৯৭ সালের ৬ জুন ব্যাংকক ঘোষণার মধ্যদিয়ে গঠিত হয়। এর সদস্য দেশগুলোর মধ্যে ৫টি দক্ষিণ এশিয়ার। এগুলো হচ্ছে- বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত, নেপাল, শ্রীলঙ্কা। অন্য দুটি দেশ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মিয়ানমার ও থাইল্যান্ড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here