সকল কাজেই ব্যর্থ বিএনপি, নেই জনগণের প্রতি আস্থা

0
191

কল কাজে বিএনপি ব্যর্থ হয়ে দেশের মানুষের প্রতি অনাস্থা সৃষ্টি করেছে।তাই নির্বাচন নিয়ে বিএনপি জনগণের মাঝে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে চায়। শুধু তাই নয় পরাজয়কে মেনে নিতে পারবে না বলে বিদেশিদের কাছে নালিশ করে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্য করছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, শেখ হাসিনার রাজনৈতিক চিন্তা নেক্সট জেনারেশন আর বিএনপির রাজনীতির চিন্তা নেক্সট ইলেকশন। এত উন্নয়ন-অর্জন আমরা করেছি, তারপরেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলে দিয়েছেন দেশের জনগণ যদি চায় আমরা ক্ষমতায় থাকব না চাইলে থাকব না। বাংলাদেশের গণতন্ত্র নিয়ে আপনাদের (বিএনপি) কোনো নালিশ থাকলে জনগণের কাছে নালিশ করুন। বিদেশিরা কি আমাদের ক্ষমতায় বসাতে পারবে? জনগণের প্রতি আস্থা থাকলে বিদেশে গিয়ে দেশের নামে নালিশ করার মত ছোট মানসিকতার পরিচয় বিএনপি দিত না। এত সংকীর্ণ চিত্তের রাজনৈতিক দল কী করে হয়! জাতিসংঘের কাছে নালিশ করে দেশের জনগণকে ছোট করা হয়েছে। আমি জনগণের বিবেকের আদালতে নালিশ করছি।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনভিত্তিক বিএনপির পক্ষ থেকে ‘ব্লুস্টার স্ট্র্যাটেজিক’ ও রাস্কি পার্টনার্স’ নামে দুটি প্রতিষ্ঠানকে লবিস্ট নিয়োগ দিয়েছেন বিএনপি। আবদুস সাত্তার নামে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত সচিবের যোগাযোগ রয়েছে তদের সাথে।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, বিএনপি এবং তাদের দোসররা ক্ষমতাকেন্দ্রিক রাজনীতি করে। বিএনপি-জামায়াত জাতীয় নির্বাচনের আগে অবৈধ পন্থা অবলম্বন অপপ্রচার করে সরকারকে বেকায়দায় ফেলার ষড়যন্ত্র করছে। আওয়ামী লীগের ইতিহাসে কোনো ষড়যন্ত্র নাই। বিদেশিদের কাছে ধরণা দিয়ে নিবাচনের আগে একটি চাপসৃষ্টি করতে চায়। কিন্তু কারও চাপের কাছে নত স্বীকার করবে না আওয়ামী লীগ। আমরা জনগণ কেন্দ্রিক রাজনীতি করি জনগণ আমাদের ক্ষমতার মূল শক্তি। চাপে থাকলে জনগরণের চাপে থাকবো কোনো বিদেশিদের চাপে নয়।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি এখন দেউলিয়াত্ব রাজনীতিতে পরিণত হয়েছে। তারা জনগণের কাছে ব্যর্থ প্রমাণিত হয়েছে। তাই বিদেশিদের কাছে নালিশে ব্যস্ত কিন্তু জনগণই সকল ক্ষমতার উৎস। সেই বিষয় তাদের মনোবল একবারেই নেই। নির্বাচনকে বানচাল ও বিতর্কিত করতে বিদেশে বিভিন্ন ভাবে নালিশ ষড়যন্ত্র করছে বিএনপি। তবে কোনো ষড়যন্ত্র নির্বাচন বন্ধ হবে না।

গতমঙ্গলবার রাতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল যুক্তরাষ্ট্রের গিয়েছেন। তখন বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস তাদেরকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। কিন্তু জাতিসংঘ মহাসচিব দপ্তরের স্ট্র্যাটেজিক কমিউনিকেশন অফিসার জোয়স লুইস ডায়াজ নিশ্চিত করেছেন যে, গুতেরেস ফখরুলকে আমন্ত্রণ জানাননি। বরং মির্জা ফখরুলের অনুরোধে সংস্থাটির রাজনীতি বিষয়ক সহকারী মহাসচিবের সাথে বৃহস্পতিবার মিরোস্তাভ জেনকার সঙ্গে বৈঠক করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here