সাতসকালেই সড়কে প্রাণ গেলো ১১ জনের

0
44

আজ শুক্রবার সকালেই সিলেট, বগুড়া ও চুয়াডাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদন-

সিলেট: ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রশিদপুরে এনা পরিবহন ও লন্ডন এক্সপ্রেসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৭ জনের প্রাণহানি হয়েছে। এ ঘটনায় দুই বাসের আরও অর্ধশতাধিক যাত্রী আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে দক্ষিণ সুরমা থানার রশিদপুর নামক স্থানে এই ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ৭জন হলেন, এনা গাড়ির ড্রাইবার মঞ্জু (৩৫), সোপার বাইজার সালমান, হেলপার জাহাঙ্গীর, শরাইলের আলি আয়দার মেম্বার বাড়ির নুরুল আমিন (৫০), সাগর (২৯), সিলেট ওমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রভাষক ডা. আল মাহমুদ সাদ (২৯) ও শাহ কামাল।

এ তথ্য নিশ্চিত করে দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা লন্ডন এক্সপ্রেস (ঢাকা মেট্রো-ব ১৫-৩১৭৬) ও সিলেট থেকে ছেড়ে যাওয়া ঢাকামুখী এনা পরিবহনের (ঢাকা মেট্রো ব ১৪-৭৩১১) দ্রুতগতির দুটি বাসের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় বাসের সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে গেছে। এতে বহু যাত্রী আহত হয়েছেন। আর নিহত সংখ্যা ৭ জন।

ফায়ার সার্ভিস সিলেটের ভারপ্রাপ্ত ডিডি মো. কুবাদ আলী সরকার বলেন, ‘ঘটনাস্থল থেকে আমরা এসে ১০ জনকে উদ্ধার করেছি। এরমধ্যে ৭ জনের প্রাণহানি হয়েছে। আর আহতদের এর আগেই ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

বগুড়া: জেলার মাঝিরায় বাসের ধাক্কায় সিএনজি অটোরিকশার চালকসহ চারজন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার ভোরে ক্যান্টনমেন্টের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত চারজনের মধ্যে দু’জনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন, শাজাহানপুর উপজেলার ডেমাজানি গ্রামেন কালিদাস (৭০) এবং ধুনট উপজেলার শাহ জামাল।

বগুড়া ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক আব্দুল হামিদ জানান, সকাল ছয়টার দিকে ঢাকা থেকে গাইবান্ধাগামী শাওন পরিবহনের বাসটি সামনে থাকা সিএনজি অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে তিন জন মারা যায়। আহত একজনকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

এরপরে, হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে দুর্ঘটনাকবলিত সিএনজি এবং বাসকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। পুলিশ বাসের চালককে আটক করেছে।

চুয়াডাঙ্গা: জেলার আলমডাঙ্গায় পাখিভ্যান (ব্যাটারি চালিত ভ্যান) উল্টে শিপন আলী নামে এক যাত্রী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও দুজন।

আজ শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে আলমডাঙ্গা উপজেলার খাসকররা ভূমি অফিসের সামনে এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত শিপন আলী (৩৫) আলমডাঙ্গা উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে। আহতরা হলেন শিপনের ছোট ভাই রিপন আলী (২০) ও পাখিভ্যান চালক ইকরামুল কবির (২৬) একই গ্রামের কালু মণ্ডলের ছেলে। নিহত শিপনের মরদেহ সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

দুর্ঘটনায় আহত পাখিভ্যান চালক ইকরামুল কবির জানান, শিপনের শ্যালকের ছেলের সুন্নতে খাৎনার মাংস কেনার জন্য পাখিভ্যানযোগে সরোজগঞ্জ বাজারে যাচ্ছিলেন তারা। এ সময় খাসকররা ভূমি অফিসের সামনে পৌঁছালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাখিভ্যানটি উল্টে যায়। আহত হন পাখিভ্যান যাত্রী শিপন, রিপন ও ভ্যান চালক ইকরামুল। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মাহবুবুর রহমান শিপনকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মাহবুবুর রহমান জানান, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে হাসপাতালে নেয়ার আগেই মারা যান শিপন। দুর্ঘটনায় আহত রিপন ও ইকরামুলকে সদর হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর কবির জানান, দুর্ঘটনার পর নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। নিহতের পরিবারের থানায় এলে একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হবে। সূত্র : আরটিভি নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here