সাত বছরেই নাচের তারকা!

0
189

‘ড্যান্স দিওয়ানে’ নৃত্য প্রতিযোগিতার ফাইনাল রাউন্ড হয় গতকাল শনিবার। বিচারক মাধুরী দীক্ষিত, শশাঙ্ক খৈতান ও তুষার কালিয়া জয়ীর নাম ঘোষণা করেন। বিজয়ী হন কলকাতার সন্তান আলোক শ। তার হাতে তুলে দেওয়া হয় ট্রফি ও পুরস্কারের অর্থ ১০ লাখ রুপি।

ট্রফি হাতে উচ্ছ্বসিত আলোক। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে ছোট্ট আলোক বলে, ‘ড্যান্স দিওয়ানে প্রতিযোগিতায় জিততে পেরে আমি সত্যিই খুশি। সত্যি বলছি, ভাবিইনি জিততে পারব। এই প্রতিযোগিতা সত্যিই কঠিন ছিল।’

কে তার সেরা প্রতিযোগী ছিল? এমন প্রশ্নের জবাবে সাত বছর বয়সী বিস্ময়কর নৃত্যশিল্পী বলে, ‘জ্যোতি ভাইয়া আমার গ্রুপে ছিলেন। তিনি সত্যিই ভালো করেছেন। সব মিলিয়ে কিশান ভাইয়ারও ভালো সুযোগ ছিল। যখন আমার নাম ঘোষণা করা হয়, তখন আমার ভাগ্যকে বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না।’

সবাই আলোকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। এই শোর মাধ্যমেই সে তারকা বনে গেছে। যখন জিজ্ঞেস করা হয়, তার পছন্দের সেরা পারফরম্যান্স কোনটা? এ বিস্ময়-বালক বলে, ‘আমার সব পারফরম্যান্সই বিশেষ। কিন্তু মেয়ে সেজে নাচটিই পছন্দের। এটা আমার জন্য খুব কঠিন ছিল। বিচারকরাও প্রশংসা করেছেন। সব সময় এটা মনে থাকবে।’

এ বিজয় মা-বাবাকেই উৎসর্গ করতে চায় আলোক। খুদে চ্যাম্পিয়ন বলে, ‘আমার চেয়েও এমন বড় জায়গায় আসার স্বপ্ন তাঁদের বেশি ছিল। প্রত্যেক দিন তাঁরা প্রার্থনা করেছেন, আমি যেন ড্যান্স দিওয়ানে বিজয়ী হই। তাঁদের আশীর্বাদ ও ভালোবাসার জন্যই এ জয়। যখন তাঁরা মঞ্চে আমাকে জড়িয়ে ধরেছেন, আমরা সবাই কেঁদেছি।’

তবে আলোক নৃত্যশিল্পী নয়, অভিনেতা হতে চায়। এ কথা সে বহুবার বলেছে। কিন্তু জয়ের পর নাচের প্রতি তার আগ্রহ বেড়েছে। বলেছে, ‘না, এখন নাচকেই অগ্রাধিকার দেবো। কিন্তু সবার আগে আমার পড়াশোনা। আমি পড়াশোনা শেষ করতে চাই আগে। এরপর নাচ ও অভিনয়কে পেশা হিসেবে নেব। এখন আমাকে প্রচুর শিখতে হবে। গৃহশিক্ষক আমার জন্য গর্বিত এবং আমি তাঁর কাছ থেকে আরো প্রশিক্ষণ নিতে চাই।’

বলিউড সুপারস্টার সালমান খানের হৃদয়ও জয় করেছে এ বিস্ময় বালক। মাধুরী দীক্ষিত তো বলেই ফেলেছেন, এ ‘তারকার’ সঙ্গে ছবি করতে চান তিনি!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here