সিলেটের সমাবেশ থেকে আজ কী বার্তা দেবে ঐক্যফ্রন্ট?

0
136

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মাঠের কর্মসূচি সিলেটে সমাবেশের মধ্য দিয়ে শুরু হচ্ছে। এই সমাবেশ ঘিরে এখন দেশের রাজনৈতিক অঙ্গন তো বটেই, সাধারণ মানুষের দৃষ্টিও সিলেটে। নেতারা এ সমাবেশ থেকে কোন কর্মসূচি ঘোষণা করেন কিংবা কী বার্তা দেন- সেদিকেই সবার আগ্রহ।সিলেট নগরীর ঐতিহাসিক রেজিস্ট্রারি মাঠে বুধবার বেলা ২টায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।সমাবেশে যোগ দিতে মঙ্গলবার সিলেটে এসে পৌঁছেন গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু, মোহাম্মদ শাহজাহান, শামসুজ্জামান দুদু, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য মনিরুল হক চৌধুরী, আমানউল্লাহ আমান, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু, নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, ঐক্যফ্রন্ট নেতা সুলতান মোহাম্মদ মনসুর ও জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সদস্য সচিব মোস্তফা আমিন।

আগে থেকেই সিলেটে অবস্থান করছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ইনাম আহমেদ চৌধুরী, খন্দকার আবদুল মুক্তাদির, তাহসিনা রুশদী লুনা।বুধবার ভোর ৬টার ফ্লাইটে সিলেটে পৌঁছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।পরে সকাল সাড়ে ৬টায় হযরত শাহজালালের (রহ.) মাজার জিয়ারত করেন তারা। এ সময় তাদের সঙ্গে সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীসহ জোটের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।এত সব হেভিওয়েট নেতার অংশগ্রহণে সিলেটে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ থেকে কী বার্তা আসে, তা নিয়ে রাজনীতি সচেতন মানুষের মধ্যে আগ্রহ তৈরি হয়েছে।জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট প্রক্রিয়ায় সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আজ সমাবেশ থেকে নিজেদের সাত দফা দাবি ও ১১ দফা লক্ষ্য বাস্তবায়নে সুনির্দিষ্ট ঘোষণা আসতে পারে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের কাছ থেকে।বর্তমান সংসদ ভেঙে দেয়া, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন, খালেদা জিয়ার মুক্তি, অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন নিশ্চিত করার দাবিতে সরকারের প্রতি চূড়ান্ত আলটিমেটাম দিতে পারে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এই আলটিমেটামে সরকার সাড়া না দিলে কোন পথে ঐক্যফ্রন্ট হাঁটবে, সে বিষয়েও ঘোষণা আসতে পারে।বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলছেন, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে আমরা যে সাত দফা দিয়েছি, তার যাত্রা শুরু করব পবিত্র শহর হযরত শাহজালাল ও হযরত শাহপরানের পুণ্যভূমি সিলেট থেকে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে গণতন্ত্রপ্রত্যাশী লাখো মানুষের ঢল নামবে। তিনি বলেন, সমাবেশের মূল লক্ষ্য অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে জনমত গড়ে তোলা। সেই হিসেব করেই নেতারা জনগণকে গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দেবেন বলেও জানান তিনি।গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী আরটিভি অনলাইনকে বলেন, জনমত গঠনে সিলেট সমাবেশকে আমরা টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে নিচ্ছি।  নিরপেক্ষ সরকারের দাবিতে এই সমাবেশের মাধ্যমে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হচ্ছে। সমাবেশ থেকে আমাদের নেতা ড. কামাল হোসেন আগামী দিনের আন্দোলন ও নির্বাচন নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দেবেন। তিনি বলেন, মানুষ গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে একটা নিরপেক্ষ নির্বাচন চায় এবং একতরফা নির্বাচন তারা মেনে নেবে না, এই বার্তাটিই স্পষ্ট করতে চায় ঐক্যফ্রন্ট।  আর টিভি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here