১৫ বছর পর মেসি ও রোনালদোহীন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনাল

0
66

বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৮-২ ব্যবধানে বিধ্বস্ত হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে ছিটকে গিয়েছে মেসির বার্সিলোনা। তারও আগে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর জুভেন্টাসের বিদায় ঘটেছে। ফলে এবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে নেই দুই মহাতারকার কেউই।

বায়ার্নের কাছে মেসিদের বিধ্বস্ত হতে দেখে রক্তক্ষরণ হয়েছে বার্সা সমর্থকদের হৃদয়ে। কেউ প্রশ্ন তুলেছেন, শেষ কবে বার্সিলোনা এভাবে লজ্জার হার বরণ করে নিয়েছে? ইতিহাসের পাতা ঘেঁটে দেখা যাচ্ছে, ৭৪ বছর আগে ১৯৪৬ সালে বার্সিলোনাকে এমন যন্ত্রণার হার হজম করতে হয়েছিল। হজম করতে হয়েছিল আট গোল।

তবে সেই ম্যাচটা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ছিল না। কোপা দেল রেতে সেভিয়ার কাছে বশ্যতা স্বীকার করতে হয়েছিল বার্সাকে। সেবার রাউন্ড অফ সিক্সটিনে আট গোল খেয়ে বিদায় নিয়েছিল বার্সা। গত শনিবারও লিসবনের মাঠ থেকে মাথা নিচু করে বেরিয়ে যেতে হল মেসিকে। তারও আগে ভাগ্য বিপর্যয়ের মুখোমুখি হতে হয়েছিল রোনালদোক।

এবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ভাল কিছু করার জন্যই রিয়াল মাদ্রিদ থেকে জুভেন্টাসে আনা হয়েছিল ‘সিআর সেভেন’কে। পর্তুগিজ মহাতারকা কিন্তু সেভাবে কিছু দিতে পারেননি তুরিনের ক্লাবকে। জুভেন্টাস ছিটকে যাওয়ার পরে চাকরি যায় কোচ সারির। বার্সার কোচ সেতিয়েনও বরখাস্ত হয়েছেন বলে সূত্রের খবর। দুই ক্লাব হেরে যাওয়ায় সেমিফাইনালে নেই মেসি ও রোনালদো। এই দুই সুপারস্টারকে ছাড়া চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনাল হয়েছিল সেই ২০০৫-০৬ সালের মৌসুমে।

সেবার আর্সেনালকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছিল বার্সিলোনা। কিন্তু বার্সা চ্যাম্পিয়ন হলেও সেমিফাইনাল বা ফাইনালে নামেননি মেসি। কোয়ার্টার ফাইনালের চোট পেয়ে ছিটকে দিয়েছিল মেসিকে। রোনালদো তখন ছিলেন ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডে। সেবার গ্রপ পর্ব থেকেই বিদায় নিতে হয়েছিল রোনালদোকে। ফলে রোনালদোকেও দেখা যায়নি। তার পর থেকে টানা ১৫ বছর সেমিফাইনালে হয় মেসি না হয় রোনালদো ছিলেনই নিয়ম করে। এবার দু’জনের কেউই নেই। – মার্কা/ আজকাল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here