২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় আহতরা আসামীদের সর্বোচ্চ শাস্তি চান

0
208

০০৪ সালের ২১ আগস্ট হামলায় আহতরা মিছিল নিয়ে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে হাজির হয়েছেন। তারা ন্যায় বিচার প্রতাশা করে বলেন, আসমীদের সর্বোচ্চ শাস্তি হলে নিহতদের আত্মা শান্তি পাবে। আহতদের একজন আরিফা আখতার বলেন, আমরা ন্যয় বিচার চাই। হামলায় জড়িতদের সর্বোচ্চ চাই। বুধবার সকালে তারা এ সব কথা বলেন।

বিভীষিকাময় গ্রেনেড হামলায় প্রাণ রক্ষা পেলেও বরগুনা ও ঝালকাঠির সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য বেগম নাসিমা ফেরদৌসী শরীরে রয়ে গেছে দেড় হাজারেরও বেশি স্প্লিন্টার।দীর্ঘ ১৪ বছর ধরে যন্ত্রণাকাতর জীবনযাপন করছেন তিনি। নাসিমা ফেরদৌসী বলেন, এই যন্ত্রণার অবসান হবে মামলার রায়ে যদি সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদান করা হয়। মনে শান্তি পাবো, আমার নেত্রী হামলার ঘটনার বিচার করতে পেরেছেন। মনের শান্তিই তো মানুষের আসল শান্তি।

২১ আগস্ট গুরুতর আহত হয়েছিলেন শাল থানা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা রাশেদা আক্তার রুমা (৪০)। গ্রেনেডে আঘাতে একটি পা তার পুরোপুরি অচল হয়ে গেছে। ক্রাচে ভর করে হাঁটতে হয় তাকে। রাশেদা আক্তার রুমা বলেন, ‘বিচারের আশায় দীর্ঘ সময় পার করেছি। বিচার কবে শেষ হবে, সেই আশায় বুক বেঁধে আছি। এই দেশে বঙ্গবন্ধু হত্যার আসামিদের বিচার শেষ হয়েছে, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কাজও হচ্ছে। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচারকাজও আশা করি শেষ হবে এবং আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি চাই আমরা।’

কেবল নাসিমা ফেরদৌসীই নন; দীর্ঘ ১৪ বছর পরে আজও আওয়ামী লীগের হাজার হাজার নেতাকর্মীকে তাড়া করে ফেরে একুশে আগস্টের সেই ভয়াল ঘটনা। নৃশংস সেই গ্রেনেড হামলায় আহত হয়ে পঙ্গুত্বের বোঝা নিয়ে দুর্বিষহ জীবন কাটাচ্ছেন সাজেদুল, রাজন, সাবিহা,, দীপ্তি, নাজিম, ফাহমিদা, দৌলতুন্নাহারসহ শত শত আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী। কেউ চলাফেরা শক্তি হারিয়েছেন, কেউবা হারিয়েছেন দৃষ্টিশক্তি। অনেকের শরীরে রয়ে গেছে অসংখ্য স্প্লিন্টারের অস্তিত্ব। সব মিলিয়ে এ মানুষগুলো। অসহ্য যন্ত্রণা বয়ে বেড়াচ্ছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here