অ্যামনেস্টি ও আইএফজির উদ্বেগ

0
265

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাকস্বাধীনতার ক্ষেত্রে বড় বাধা হয়ে দাঁড়াবে। এটি মুক্ত গণমাধ্যমের ওপর কড়াকড়ি আরোপ করবে। এই আইন সমালোচনাকারীদের বিরুদ্ধে অপব্যবহার করা হতে পারে। সাংবাদিক সমাজের আপত্তির মুখে আইনটি সংসদে পাস হওয়ার পর গতকাল বৃহস্পতিবার পৃথক প্রতিক্রিয়ায় এমন উদ্বেগ প্রকাশ করেছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ও ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব জার্নালিস্টস (আইএফজি)।

অ্যামনেস্টির সাউথ এশিয়া ক্যাম্পেইনার সাদ হামাদি বলেছেন, এ আইন মত প্রকাশের স্বাধীনতার ওপর ভয়ঙ্কর প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করবে। তথ্যপ্রযুক্তি আইনের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, অতীত থেকে শিক্ষা না নিয়ে তারই পুনরাবৃত্তি করা হয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তি আইনে ছয় বছরে কয়েকশ’ মানুষকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এটি খুবই উদ্বেগের বিষয়, নতুন এই আইনও সমালোচনাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হতে পারে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে বাংলাদেশের সম্পাদক পরিষদ ও নাগরিক সমাজের উদ্বেগ উপেক্ষা করে আইনটি করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন সাদ হামাদি। বাকস্বাধীনতাকে সমুন্নত রাখতে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন প্রতিশ্রুতির প্রতি সম্মান রেখে এ ধরনের দমনমূলক আইন থেকে সরকারকে সরে আসতে অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব জার্নালিস্টস জানিয়েছে, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গণমাধ্যম ও সাংবাদিকদের হয়রানি করার সুযোগ রয়েছে। এটি স্বাধীন সাংবাদিকতার চর্চা ব্যাহত করবে। আইনের ৮, ২১, ২৫, ২৮, ২৯, ৩১ ও ৪৩ বিতর্কিত ধারা মুক্ত গণমাধ্যমের জন্য হুমকি এবং সাংবাদিকদের জন্য ভীতিকর। শিগগিরই এসব ধারা সংশোধন করে স্বাধীন গণমাধ্যমের পথ খোলা রাখতে আহ্বান জানিয়েছে সংগঠনটি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here