আগারওয়াল-সাকিব যোগসূত্র কী তবে হিথ স্ট্রিক!

0
26

বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা (আইসিসি) জানায়, দুর্নীতির দায়ে জিম্বাবুয়ের কিংবদন্তি ক্রিকেটার হিথ স্ট্রিককে আট (৮) বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এই সময়ে তিনি ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট কোনো কাজে অংশ নিতে পারবেন না।

আইসিসির দেয়া সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দেখা যায় ২০১৭ সালে ‘মি. এক্স’ নাম দিয়ে হিথ স্ট্রিক হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে ম্যাসেজ আদান প্রদান করেন দীপক আগারওয়ালের সঙ্গে।

এসময় হিথকে বেশ কয়েকটি লোভনীয় অফার দেন আগারওয়াল। ছিল জিম্বাবুয়েতে টি-টোয়েন্টি লিগ আয়োজন করে অর্থ আয়ের প্রস্তাবও। এসময় দীপক হিথকে পরিষ্কার বলে দেন, তিনি একজন জুয়াড়ি। তাতেও যোগাযোগ বন্ধ করেননি এই কিংবদন্তি ক্রিকেটার। এরপর হিথের বিদেশী ব্যাংক একাউন্ট নম্বরও ছেয়ে নেন।

লম্বা সময় ধরে, প্রায় ১৫ মাসের মতো যোগাযোগ চলে দুই জনের। আইসিসি জানায়, দুই জনের যোগাযোগ নিয়ে হিথকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর তারা আর যোগাযোগ করেনি একে অপরের সঙ্গে।

আইসিসি আরও জানায়, যোগাযোগ চলাকালীন হিথ স্ট্রিক ছিলেন জিম্বাবুয়ে, আইপিএল, বিপিএল ও আফগানিস্তান প্রিমিয়ার লিগে (এপিএল) দলের কোচ। এ সময় বিপিএলের ২০১৭ আসরে একটি দলের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আদান প্রদান করেন আগারওয়ালের সঙ্গে। একইসঙ্গে আগারওয়াল হিথ স্ট্রিককে বলেন, দলের মালিক, অধিনায়ক ও ক্রিকেটারদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে।

আর এটাই হবে আগারওয়ালের ম্যাচ পাতানোর সবচেয়ে মাধ্যম। সেই অর্থ আবার হিথ স্ট্রিককে দেবেন জিম্বাবুয়েতে টি-টোয়েন্টি লিগ আয়োজনে। এতে করে দুইজনেই মোটা অংকের অর্থ কামাবেন।

বিপিএল শেষ হবার পর ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশে জিম্বাবুয়ে ও শ্রীলঙ্কাকে নিয়ে আয়োজন হয় ত্রিদেশীয় সিরিজ। ঠিক তখনই দলের তথ্য চেয়ে সাকিব আল হাসানকে মেসেজ দেয় আগারওয়াল। এখানেই শেষ নয়, ওই বছর ২৬ এপ্রিল সাকিব আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে খেলা কালীন সময়েও দলের তথ্য ছেয়ে মেসেজ করেন আগারওয়াল।

সেই তথ্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বা আইসিসিকে না জানিয়ে গোপন করায় ক্রিকেট থেকে এক বছরের নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়েন সাকিব! আরটিভি নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here