উচ্চাকাঙ্খা ও আশায় উৎসাহ দেয় ইসলাম

0
333

 উচ্চাকাঙ্খা ছাড়া মানুষ তার স্বপ্নীয় রাজ্যে কখনো পৌঁছতে পারে না। জীবনের সফলতার স্বর্গীয় স্বাদ বুঝতে ও পৌঁছতে চেষ্টা আর সাধনার সাথে সাথে থাকতে হয় উচ্চাকাক্সক্ষা। যে সাহসে ও আকাক্সক্ষাতে কমতি থাকে সে কখনো তার কল্পিত বস্তু পেতে পারেনা। একজন মুমিনের তাকওয়ার শান হলো তার উচ্চাকাঙ্খা।

যেমন হযরত উমর ইবনুল খাত্তাব (রা.) বলছিল, যদি সমস্ত পৃথিবী হতে একজন লোক জান্নাতে নেওয়া হয়, আমি আশা রাখি সেই লোকটি আমিই হবো। যদি সমস্ত পৃথিবী থেকে একজন লোক জাহান্নামে যায়, আমার আশঙ্কা আর ভয় হয় না জানি সেই লোকটি আমিই হয়। এই কথা থেকে আমরা সহজেই বুঝতে পারি হযরত উমর ইবনুল খাত্তাবের রা. উচ্চাকাক্সক্ষা। একজন মুমিন বান্দার চির প্রাপ্তি ও সফলতা কী? অবশ্যই একজন মুমিন বান্দার চির আশা ও সফলতা হলো আল্লাহ তায়ালার ক্ষমা প্রাপ্তি ও জান্নাত লাভ।

এই ক্ষমা আর জান্নাতের জন্য তার থাকতে হবে উচ্চাকাক্সক্ষা। আল্লাহ তায়ালা সেই উচ্চাকাক্সক্ষার কথা ঘোষণা করেছেন এভাবে, তোমাদের প্রভুর ক্ষমা ও জান্নাতের দিকে চেষ্টার সাথে দৌঁড়াও (এগিয়ে যাও); যে জান্নাতের পরিধি আসমান থেকে যমীন পর্যন্ত বিস্তৃত। আর তা প্রস্তুত করা হয়েছে মুত্তাকিনদের জন্য’ সুরা আলইমরান ১৩৩। উচ্চাকাক্সক্ষার বিষয় ছাড়া মানুষ চেষ্টার সাথে কাজ করে না।

একারণে মহান আল্লাহ তায়ালা চেষ্টার সাথে দৌঁড়াতে বলছেন। জান্নাতের খানিকটা বিবরণও দিয়েছেন যে আকাক্সক্ষা থেকে উচ্চাকাক্সক্ষা হয়। যে স্বপ্ন দেখতে জানে না সে জীবনে সফল হয় না। সফল ও মহামুক্তির ঘোষণায় ভূষিত হয়েছেন যে সব সাহাবিদের কাহিনীতে দেখুন; কতটা ত্যাগ তিতিক্ষা বিসর্জন দিয়ে জীবন বিলিয়েছেন।

দুনিয়ার কোন মোহ বা আরাম প্রিয়তা তাদেরকে তার উচ্চাকাক্সক্ষা অর্জনে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। কুরআনের এক স্থানে তাদের সেই কথার কি সুন্দর বিবরণ বিবৃত হয়েছে ’এমন কিছু লোক আছে যাদেরকে তাদের ব্যবসা বাণিজ্য ও ক্রয়বিক্রয় আল্লাহ যিকির ইকামাতে নামাজ ও যাকাত আদায় থেকে বাঁধা দিতে পারেনি’ (সুরা আননুর ৩৭)।

আমাদের সমাজে উচ্চাকাঙ্খা আর লোভকে এক ভাবা হয়। বলা হয় অতিলোভ ভালো নয়। কথা ঠিক আছে। কিন্তু লোভ আর উচ্চাকাক্সক্ষা এক না। একজন মানুষ জীবনে পাইলট হবার স্বপ্ন লালন করে আর তার জন্য মেহনত করে এটা কী লোভ? কেউ যদি দুনিয়ার অর্থ সম্পদ আর উচ্চবিলাসিতার জন্য যথেষ্ট পরিমাণ থাকার পরও ‘আরো চাই আরো চাই’ এটা হলো অতিলোভ।
হাদীস শরিফে রয়েছে, যে কাজে তোমার উপকার রয়েছে সে কাজ তুমি আগ্রহ ভরে করো। আল্লাহর সাহায্য কামনা করো। আর কোন কাজ করতে পারবে না এমন ভেবোওনা’ মুসলিম : ২৬৬৪। হাদীসের শেষাংশে বলা হয়েছে এমন ভেবো না যে তুমি তা পারবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here