শাজাহান খান ও রাঙ্গাঁর পদত্যাগ চায় টিআইবি

0
298

ফয়সাল মেহেদী: নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের প্রতি একাত্মতা জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। একইসঙ্গে পরিবহন শ্রমিক নেতা ও নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান এবং স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মো. মসিউর রহমান রাঙ্গাঁর পদত্যাগ চেয়েছে দুর্নীতি বিরোধী এ সংস্থাটি।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে টিআইবি কার্যালয়ে আয়োজিত ‘বৈদেশিক অর্থায়নে পরিচালিত এনজিও খাত: সুশাসনের চ্যালেঞ্জ এবং করণীয়’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান এ দাবি জানান।

তিনি বলেন, নিরাপদ সড়ক ও পরিবহন খাতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার জন্য ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের যে আন্দোলন চলছে তার প্রতি টিআইবির পুরোপুরি সমর্থন রয়েছে। এ আন্দোলন সাংবিধানিক অধিকার চর্চার আন্দোলন। আমরা মনে করি, এটি জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ আন্দোলন। এটি কোনো রাজনৈতিক বিষয় না। যেভাবে সরকার সড়ক নিরাপত্তার বিষয়টি অবজ্ঞা করেছে, সেটি আমাদের সাংবিধানিক অধিকার অবজ্ঞার শামিল।

শাজাহান খান নৌমন্ত্রীর পাশাপাশি বাংলাদেশে শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যকরী সভাপতির দায়িত্বেও আছেন। আর পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গা বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতির পদে রয়েছেন। দেশের বিদ্যমান দুর্নীতিগ্রস্ত পরিবহন খাতের সঙ্গে এই দুই মন্ত্রীর ব্যক্তি স্বার্থ সংঘাতমূলক মন্তব্য করে ইফতেখারুজ্জামান বলেন, আমরা পরিবহন খাতে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা চাই। এই দুই ব্যক্তিকে মন্ত্রীর পদ থেকে অপসারণের দাবি জানাচ্ছি।

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক আরও বলেন, পৃথিবীর ইতিহাসে কোনো গণতান্ত্রিক দেশে এমন দৃষ্টান্ত খুবই কম যে- একই ব্যক্তি শ্রমিক ইউনিয়ন, মালিক ইউনিয়নের প্রধানের পাশাপাশি মন্ত্রীর দায়িত্বেও থাকেন। এটি দেশে নতুন ঘটনা নয়, দীর্ঘদিন ধরেই এটি চলছে। যার ফলে অরাজকতার জন্য যারা দায়ি তাদের সুরক্ষা দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও তিনি বলেন, পরিবহন খাতে দীর্ঘদিনের পুঞ্জিভূত সমস্যা মোকাবেলায় সরকারের পক্ষ থেকে কোনো বাস্তবসম্মত উদ্যোগ আমরা দেখিনি। এর অন্যতম কারণ হিসেবে আমরা মনে করি এ খাত প্রচ-ভাবে স্বার্থের দ্বন্দ্বের কাছে জিম্মি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here